হিন্দু দেশের তালিকাঃ জনসংখার বিচারে প্রথম দশটি হিন্দু দেশের তালিকা

0

হিন্দু দেশের তালিকা

 

হিন্দু দেশের তালিকায় প্রথম স্থানে অবস্থান করছে ভারত। হিন্দু ধর্ম পৃথিবীর অন্যতম প্রাচীন ধর্ম । তাই হিন্দু ধর্ম কে সনাতন ধর্ম নামে অভিহিত করা হয় । হিন্দু ধর্ম একাধিক ধর্মীয় ঐতিহ্য সমন্বয়ে গঠিত । ভারতের ঐতিহাসিক বৈদিক ধর্ম তথা হিন্দুধর্মকে বিশ্বের প্রাচীনতম ধর্ম হিসাবে গন্য করা হয় । জনসংখ্যার বিচারে খ্রিস্ট ধর্ম ও ইসলাম ধর্মের পরেই হিন্দু ধর্মের অবস্থান । সারা বিশ্বে এই ধর্মের অনুগামীদের সংখ্যা প্রায় ১৬৯ কোটি । এদের মধ্যে প্রায় ১০০ কোটি হিন্দু মতে বিশ্বাসী মানুষ বাস করেন ভারতে ।  ভারত ছাড়াও পৃথিবীর অনেক দেশে হিন্দু জনগোষ্ঠীর বসবাস করে আসছেন ।

আসুন জেনে নিই পৃথিবীর শীর্ষ 10 টি দেশ সম্পর্কে, যেখানে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক হিন্দু ধর্মাবলম্বী বসবাস করেন । তবে জেনে রাখা ভালো, হিন্দুরাষ্ট্র বলতে পৃথিবীতে কোন দেশ নেই ।হিন্দু দেশের তালিকায় জনসংখ্যার শতকরা হার বিবেচনায় সবচেয়ে বেশি হিন্দু ধর্মানুসারী বসবাস করেন ভারত, নেপাল ও মরিশাসে । কিন্তু সর্বাধিক হিন্দু অধ্যুষিত দেশ ভারত একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ । সাংবিধানিকভাবে ভারত হিন্দুরাষ্ট্র ছিল না । নেপাল হিন্দুরাষ্ট্র ছিল বটে, কিন্তু বর্তমানে নেপালও একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ । মরিশাসও একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ । 2010 সালে একটি জরিপের ভিত্তিতে এই তালিকা করা হয়েছে ।

হিন্দু দেশের তালিকা

১০) মায়ানমারঃ হিন্দু দেশের তালিকা অনুযায়ী দশম স্থানে রয়েছে মায়ানমার। 2010 সালের সর্বশেষ জরিপ অনুযায়ী ভারতের প্রতিবেশী দেশ মায়ানমারে আট লক্ষ কুড়ি হাজার হিন্দু ধর্মের অনুসারী রয়েছে । বৌদ্ধ অধ্যুষিত এই দেশে বসবাসকারী হিন্দুরা মূলত ভারতীয় এবং বাঙালি বংশোদ্ভূত । এককালে মায়ানমারের নাম ছিল ব্রহ্মদেশ আর হিন্দু ধর্মের অন্যতম দেবতা ব্রহ্মদেব, সে তো বলার অপেক্ষা রাখে না ।

৯) গ্রেট ব্রিটেনঃ গ্রেট ব্রিটেন আট লক্ষ নব্বই হাজার হিন্দু ধর্মানুসারী বসবাস করে । এখানকার হিন্দুরা মূলত প্রবাসী হিন্দু । ভারত বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে এরা যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমিয়েছেন । পাশাপাশি যুক্তরাজ্যের ব্যবসা-বাণিজ্য ও রাজনীতিতে হিন্দুরা ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করেছেন ।

৮) মালয়েশিয়াঃ মালয়েশিয়া মূলত একটি মুসলিম অধ্যুষিত দেশ । হিন্দু ধর্ম মালয়েশিয়ার চতুর্থ বৃহত্তম ধর্ম । এখানে বসবাসকারী হিন্দু ধর্মের অনুসারী সংখ্যা সতের লক্ষ কুড়ি হাজার । এই দেশে হিন্দু ধর্মের বিভিন্ন অনুষ্ঠান বেশ জাঁকজমকের সাথে পালিত হয় ।

৭) যুক্তরাষ্ট্রঃ হিন্দু দেশের তালিকায় পৃথিবীর শক্তি আমেরিকা অবস্থান করছে সপ্তম স্থানে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত হিন্দুরাও মূলত প্রবাসী হিন্দু । এখানে বসবাসকারী হিন্দু জনসংখ্যার পরিমাণ সতের লক্ষ নব্বই হাজার । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী হিন্দুরা সেই দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ও রাজনৈতিক ক্ষেত্রে বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে ।

৬) শ্রীলঙ্কাঃ হিন্দু দেশের তালিকা অনুযায়ী শ্রীলঙ্কা অবস্থান করছে ষষ্ঠ স্থানে। ভারতের প্রতিবেশী দেশ শ্রীলংকা । রামায়ণের লঙ্কা সম্পর্কে অনেক তথ্যই পাই । সেই থেকে আন্দাজ করা যেতেই পারে শ্রীলংকায় হিন্দু ধর্মের বিস্তৃতি অনেক আগে থেকেই । তবে বর্তমানে শ্রীলংকা একটি বৌদ্ধ অধ্যুষিত দেশ । সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী শ্রীলঙ্কায় আটাশ লক্ষ ত্রিশ হাজার হিন্দু জনগোষ্ঠী বসবাস করে । এদের বেশিরভাগই তামিল বংশোদ্ভূত ।

৫) পাকিস্তানঃ  চক্ষু চড়কগাছ হলেও সত্যি যে পাকিস্তানে হিন্দু ? ভাবতেই অবাক লাগছে, তাইনা ? পাকিস্তানে হিন্দুদের সংখ্যা নেহাত কম নয় । সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী পাকিস্তানে বসবাসকারী হিন্দু জনসংখ্যার পরিমাণ তেত্রিশ লক্ষ ত্রিশ হাজার । তবে জঙ্গিদের বিভিন্ন অত্যাচারে পাকিস্তানি হিন্দু জনগোষ্ঠীর পরিমাণ ক্রমাগত কমছে । পাকিস্তানের বেশ কিছু বিখ্যাত হিন্দু মন্দির ও তীর্থ স্থান রয়েছে ।

৪) ইন্দোনেশিয়াঃ হিন্দু দেশের তালিকায় ইন্দোনেশিয়া অবস্থান করছে চতুর্থ স্থানে। হিন্দু দেশের তালিকায় ইন্দোনেশিয়া অবস্থান করছে চতুর্থ স্থানে। জনসংখ্যা বিবেচনায় ইন্দোনেশিয়া বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম দেশ । কিন্তু এই দেশে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক হিন্দু ধর্মাবলম্বী বসবাস করে । পরি সংখ্যান বলছে চল্লিশ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার হিন্দু ধর্মাবলম্বী এই দেশে বসবাস করে । ইন্দোনেশিয়ায় হিন্দুদের বসবাস অনেক পুরনো ।ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে এক সময় এই দেশ শাসন করেছে হিন্দুরা । ইন্দোনেশিয়া বিভিন্ন জায়গার স্থাপনা, এমনকি ব্যক্তির নাম করনে হিন্দু ও সংস্কৃত ভাষার প্রভাব এখনো বিদ্যমান ।

৩) বাংলাদেশঃ হিন্দু দেশের তালিকায় বাংলাদেশ অবস্থান করছে তৃতীয় স্থানে। বাংলাদেশ একটি মুসলিম অধ্যুষিত দেশ । হিন্দু ধর্ম এখানকার দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্ম । ১৯৪৭ সালের দেশভাগের পূর্বে এখানে প্রায় ৪০ শতাংশ হিন্দু ধর্ম-এর মানুষ বসবাস করত । কিন্তু, বিভিন্ন কারণে বাংলাদেশে হিন্দু ধর্ম অনুসারী মানুষের সংখ্যা কমছে । সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশে বসবাসরত হিন্দুর সংখ্যা এক কোটি ছাব্বিশ লক্ষ আশি হাজার । বাংলাদেশের হিন্দুদের ধর্মীয় আচরণ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা, আসাম এ বসবাসরত বাঙালিদের অনুরূপ । দুর্গাপূজা, কালীপূজা, সরস্বতী পূজা ছাড়াও অন্যান্য হিন্দু ধর্মীয় অনুষ্ঠান গুলো এখানে মহাসমারোহে পালিত হয় । প্রতি বছর দুর্গাপূজায় সারাদেশব্যাপী প্রায় ৩০ হাজার মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয় । সরস্বতী পূজার সময় মাদ্রাসা ব্যতীত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মহাসমারোহে পূজা অনুষ্ঠিত হয় । বাংলাদেশে বিখ্যাত মন্দির ও তীর্থস্থান রয়েছে । সতীর ৫১ টি শক্তিপীঠের মধ্যে সাত্টি বাংলাদেশ পড়েছে । চন্দ্রনাথ সহ বেশ কয়েকটি বিখ্যাত তীর্থস্থান রয়েছে বাংলাদেশে । বৈষ্ণব ধর্মের প্রবর্তক শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর পিতৃ জন্মস্থান বাংলাদেশ । বাংলাদেশের নারায়নগঞ্জের বারদী গ্রামে বাবা লোকনাথের মন্দির অবস্থিত । সৎসঙ্গ আশ্রম এর প্রতিষ্ঠাতা শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল এর জন্মস্থান বাংলাদেশের পাবনা ।

২) নেপালঃ হিন্দু দেশের তালিকায় নেপাল অবস্থান করছে দ্বিতীয় স্থানে। বেশ কয়েক বছর আগেও সাংবিধানিকভাবে নেপাল ছিল পৃথিবীর একমাত্র হিন্দু রাষ্ট্র । কিন্তু বর্তমানে নেপাল একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ । তবে ধর্মনিরপেক্ষ হলেও নেপাল বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম হিন্দু ধর্মাবলম্বী দেশ । এখানে প্রায় দুই কোটি একচল্লিশ লাখ সত্তর হাজার হিন্দু ধর্মাবলম্বী বসবাস করেন । ভারতের প্রতিবেশী এই দেশে বিখ্যাত মন্দির ও তীর্থস্থান রয়েছে ।

১) ভারতঃ সাংবিধানিকভাবে হিন্দু দেশ না হলেও ভারত আর হিন্দুত্ব যেন একে অপরের পরিপূরক । হিন্দু ধর্মের উত্থান ও বিস্তৃতি মূলত ভারতবর্ষকে কেন্দ্র করেই । রামায়ণ-মহাভারতের মত কালজয়ী কাহিনীর মূল পীঠস্থান এই ভারত । সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ভারতে বসবাসকারী হিন্দু ধর্মাবলম্বী সংখ্যা সাতানব্বই কোটি সাইত্রিশ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার । সংখ্যা দেখেই বুঝতে পারা যায়, ভারত আর হিন্দুত্ব কেন মিলেমিশে একাকার ? ভারতে অনেক বিখ্যাত মন্দির ও তীর্থস্থান রয়েছে ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...