অবশেষে রাজ্যে আবির্ভাব ঘটল শীতের; প্রথম স্থানে পুরুলিয়া

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ অবশেষে মনে হয় রাজ্যবাসীর তপস্যা শেষ হল। উত্তরে হাওয়া তার সমস্ত শক্তি নিয়ে পা রাখল পশ্চিমবঙ্গে। ঠাণ্ডা বাড়ল কোলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের সর্বত্র। কোলকাতা সহ বিভিন্ন জেলায় নামল তাপমাত্রার পারদ।

কিছুতেই যেন রাজ্যে শীতের পা পড়ছিলনা। নভেম্বর শেষ করে ডিসেম্বর পড়ে গেলেও শীত থাকছিল অধরা। বাঙালীর শখের লেপ, কম্বল, গরম জামা যেন আলমারী থেকে বেরবো আর বেরচ্ছি করছিল। অন্যদিকে দেশের অন্য প্রান্তে প্রবল ঠাণ্ডা এবং তুষারপাতে জনজীবন হয়ে পড়ছিল বিপর্যস্ত। আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো হয়েছিল যে, পশ্চিমী ঝঞ্ঝা, এল নিনো এবং নিম্নচাপের দরুন রাজ্যে শীত প্রবেশে বাঁধা পাচ্ছিল। অবশেষে পরিস্থিতি বদলালে রাজ্যে প্রবেশ করলো ঠাণ্ডা। প্রবেশ করতে না করতেই এক ধাপে কমিয়ে দিল তাপমাত্রার পারদ। বৃহস্পতিবারকে আপাতত এই মরশুমের শীতলতম দিন হিসেবে ধার্য করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোর থেকেই রাজ্য জুড়ে তাপমাত্রার পারদ বেশ অনেকটা নিম্নমুখী। এদিন কোলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা হয়েছে ১৫.৯ ডিগ্রী। যা গতকালের থেকে ১ ডিগ্রী কম। কোলকাতার পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে শীতলতম হল ব্যারাকপুর। ব্যারাকপুরের তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস। বর্ধমান, আসানসোল, বাঁকুড়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে যথাক্রমে ১৪ ডিগ্রী, ১৩.৫ ডিগ্রী, ১৩.৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলির মধ্যে শীতলতমের আখ্যা পেয়েছে পুরুলিয়া। পুরুলিয়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১ ডিগ্রী রেকর্ড করা হয়েছে। শ্রীনিকেতনের তাপমাত্রা ছিল ১ ডিগ্রী বেশী মানে ১২ ডিগ্রী সেলসিয়াস।

উত্তরবঙ্গেও জাঁকিয়ে শীত পড়েছে। শিলিগুড়ি, কোচবিহার এবং জলপাইগুড়িতে এদিন তাপমাত্রা ছিল যথাক্রমে, ৯.৮ ডিগ্রী, ১০.৫ ডিগ্রী, ১১.৯ ডিগ্রী সেলসিয়াস। এই জেলাগুলির তুলোনায় যদিও কালিংপং এবং দার্জিলিং এ তাপমাত্রা যা থাকে তার থেকে বেশ কিছুটা বেশী ছিল। কালিংপং এ ছিল সাড়ে ৬ ডিগ্রী আর দার্জিলিং এ ছিল সাড়ে ৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা।

এছাড়াও উপকূলবর্তী এলাকাগুলিতেও এদিন ভালই ঠাণ্ডা পড়েছে। দীঘায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৯ ডিগ্রী সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে ২.১ ডিগ্রী কম। এদিকে ঝাড়খণ্ড, বিহারসহ গোটা পূর্ব ভারতেই শুরু হয়েছে ঠাণ্ডার দাপট। এদিন ঝাড়খণ্ডের রাজধানী রাঁচিতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৮ ডিগ্রী আর বিহারের গয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৭.২ ডিগ্রী সেলসিয়াস।

আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো যাচ্ছে যে শুক্রবার থেকে তাপমাত্রা আরও কিছুটা করে কমবে। কিন্তু এই খবরে আনন্দ পাবার কোন কারণ নেই। কারণ এর সাথে সাথে আবহাওয়া দফতর আরও জানিয়েছে যে এর পরেই আরার কিছুটা তাপমাত্রা বাড়বে। সূত্রের খবর অনুযায়ী আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তাপমাত্রা বেড়ে হবে প্রায় ১৮-১৯ ডিগ্রী সেলসিয়াস। এই তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণ হিসেবে হঠাৎ করে ঘনীভূত নিম্নচাপকে দায়ী করছে আবহাওয়া দফতর।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...