সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

লকডাউনে সরাসরি অ্যাকাউন্টে টাকা দেবার কথা ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় সরকার

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ করোনা মোকাবিলায় দেশ জুড়ে ২১ দিনের জন্য ঘোষণা করা হয়েছে লকডাউন । সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ছাড়া এই মুহূর্তে করোনা মোকাবিলা করা কোনভাবেই সম্ভব নয় । কিন্তু এই দীর্ঘ দিন ঘরবন্দী থাকা সাধারন মানুষের পেট চলবে কি ভাবে ? কাজে না গেলে সংসার অচল হয়ে যাবে – এই কথা মাথায় রেখে আজ বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন সাধারন মানুষের অ্যাকাউন্টে নগদ টাকা ট্রান্সফারের কথা ঘোষণা করলেন ।

২১ দিনের লকডাউনে সাধারন মানুষ করোনা হয়ত ঠেকাতে পারবে, কিন্তু না খেয়ে মারা যাবার সম্ভবনা থেকে যাবে । সাধারন মানুষের জীবন সচল রাখার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার আজ একগুচ্ছ জনমোহিনী ঘোষণা করেছে । জানা গেছে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে এপ্রিলের মধ্যেই প্রতিটি অ্যাকাউন্টে দুই হাজার টাকা ট্রান্সফার করা হবে ।

ভারতে করোনা সংক্রমণ বর্তমানে স্টেজ-২ পর্যায়ে রয়েছে । বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছেন, করোনা পরিস্থিতি স্টেজ -৩ পর্যায়ে গেলেই শুরু হবে মহামারি এবং সেই মহামারি নিয়ন্ত্রন করা ভারতের মোট উন্নয়নশীল দেশের পক্ষে কোনভাবেই করা সম্ভব হবে না । এদিকে এই স্টেজ- ৩ পর্যায়ে যাতে করোনা না পৌছাতে পারে তাঁর সবচেয়ে ভাল উপায় হল  সামাজিক সংস্পর্শ বন্ধ করা। হু-এর কর্তা থেকে শুরু করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক– সকলেরই দাওয়াই এই একটাই।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার থেকে ২১ দিনের লকডাউনের কথা ঘোষিত হয়েছে ।  এই ২১ দিনে সারা দেশে  জরুরি পরিষেবা ছাড়া আর কিছুই চালু থাকবে না। ফলে উচ্চবিত্ত ও মধ্যবিত্তরা ২১ দিনের সংস্থান করে নিতে পারলেও, নিম্নবিত্ত মানুষদের জন্য সেটি কঠিন হয়ে পড়বে । এই কারনেই কেন্দ্র থেকে ক্যাশ ট্রান্সফার করার কথা ঘোষণা করা হল ।

অর্থমন্ত্রী সাধারন মানুষের অ্যাকাউন্টে ক্যাশ ট্রান্সফার বিষয়ে জানিয়েছেন মোট আটটি ক্ষেত্রে টাকা প্রদান করা হবে । সেই আটটি ক্ষেত্র হল: কৃষক সম্প্রদায়, ১০০ দিনের কাজ প্রকল্পের কর্মীরা, বিধবা ভাতা, যে সব মহিলাদের জনধন অ্যাকাউন্ট রয়েছে, স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলা, সংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মী, নির্মাণ কর্মী ও কিষাণ সম্মান যোজনার অন্তর্গত কৃষকরা। ফলে এই ক্ষেত্রগুলিতে যত মানুষ নথিভুক্ত আছেন তারা প্রত্যেকেই তাঁদের অ্যাকাউন্টে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহেই ২ হাজার টাকা করে পাবেন । এর ফলে দেশের ৮ কোটি ৭০ লক্ষ কৃষক উপকৃত হবেন বলে জানা গেছে ।

এছাড়াও আজ  ১০০ দিনের কাজ প্রকল্পেও ন্যূনতম মজুরি ১৮২ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০২ টাকা করার কথা ঘোষণা করা হয়েছে । পাশাপাশি  বার্ধক্য ভাতা, বিধবা ভাতা, এবং প্রতিবন্ধী ভাতার অন্তর্ভুক্ত যে এককালীন হাজার টাকা করে প্রাপ্য, সেটি তাঁদের অ্যাকাউন্টে সরাসরি দিয়ে দেওয়া হবে ।এর ফলে গোটা দেশে মোট তিন কোটি মানুষ এর ফলে উপকৃত হবেন। এছাড়াও মহিলা জনধন যোজনার আওতায় থাকা মহিলাদের অ্যাকাউন্টেও মাসে ৫০০ টাকা করে আগামী তিন মাস দেওয়া হবে।

মন্তব্য
Loading...