সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

আবহাওয়ার খবর, জেনে নিন কোথায় কোথায় বৃষ্টির সম্ভবনা প্রবল

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ আলিপুর আবহাওয়া অফিস থেকেই আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল সপ্তাহের শেষ থেকেই শুরু হবে বৃষ্টি । রবিবার সকাল থেকেই দক্ষিন বঙ্গের আকাশ মেঘলা । জায়গায় জায়গায় বৃষ্টি হয়েছে । তবে বৃষ্টির পরিমাণ ছিল না বেশি । আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়ে দিল আগামী কয়েকদিন কোন কোন জেলায় বৃষ্টিপাতের সম্ভবনা বেশি ।

হাওয়া অফিস থেকে আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল চলতি সপ্তাহে দুই বঙ্গে বৃষ্টি হবে । তবে তুলনা মূলকভাবে উত্তর বঙ্গের বৃষ্টির পরিমাণ বেশি । হাওয়া অফিস জানিয়েছে, একটি মৌসুমী অক্ষরেখা গোয়ালিয়র, রাঁচি, জামশেদপুর, হলদিয়া হয়ে বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর প্রভাবে প্রচুর পরিমাণ জলীয়বাষ্প ঢুকছে রাজ্যে। অন্য দিকে রাজস্থান ও পূর্ব উত্তরপ্রদেশে অবস্থান করছে একটি ঘূর্ণাবর্ত। এর পাশাপাশি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে পশ্চিম, মধ্য ও উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরের   অন্ধ্র ও উড়িষ্যা উপকূল বরাবর। গুজরাতের উপকূলে থাকা ঘূর্ণাবর্ত পরবর্তী সময়ে সৌরাষ্ট্র উপকূলে গিয়ে নিম্নচাপে পরিণত হবে। আর এইসবের জেরেই চলবে বৃষ্টিপাত।

এই মুহূর্তে বাতাসে জলীয় বাস্পের পরিমাণ অনেক বেশি । ফলে ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে যে নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে চলেছে তাতে এই মুহূর্তে দক্ষিনবঙ্গের পাশাপাশি  উত্তরবঙ্গেও ভারি থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস।আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী উত্তর বঙ্গের পাঁচ জেলা দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ারে রবিবার থেকেই ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ।

অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের পাশাপাশি  মালদা এবং উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে রয়েছে বজ্র বিদ্যুৎসহ বৃষ্টি । আগে অবশ্য হাওয়া অফিস জানিয়েছিল সোমবার থেকে উত্তরবঙ্গের আবহাওয়ায় পরিবর্তন হতে পারে। তবে নতুন পূর্বাভাসে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, সোমবার এবং মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহারে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়াও বুধবার এবং বৃহস্পতিবার দার্জিলিং, আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহার জেলায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে।

এই মুহূর্তে শহর কলকাতায়  শনিবার বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি বেশি। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ সর্বাধিক ৯০ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৬৫ শতাংশ। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ অত্যধিক হলেও বৃষ্টি হওয়ার ফলে দিনেরবেলায় অতটাও ভ্যাপসা গুমোট গরম অনুভূত হচ্ছে না।

মন্তব্য
Loading...