জ্বলছে উত্তর প্রদেশ; বিক্ষোভ থামাতে লাঠি, কাঁদানো গ্যাস

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে উত্তর প্রদেশের জেলায় জেলায় । গতকাল বিক্ষোভের আগুন জ্বলেছিল উত্তর প্রদেশের লখনউ-তে । আজ শুক্রবার পরিস্থিতি আরও মারাত্মক আকার ধারন করেছে । জেলায় জেলায় পথে নেমেছে হাজার হাজার মানুষ । পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে ইট বৃষ্টি, গাড়িতে অগ্নি সংযোগ কিছুই বাদ যায়নি । অপর দিকে পুলিশ জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে চালিয়েছে লাঠি, কাঁদানো গ্যাস । সব মিলিয়ে উত্তর প্রদেশের অবস্থা ভয়াবহ আকার নিয়েছে ।

গতকালকের পরিস্থিতি দেখে উত্তর প্রদেশের প্রশাসন আজ সব রকম ব্যবস্থা নিয়েছিল । উপরন্তু উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ গতকালই ঘোষণা করেন ,  দেশবিরোধী ও প্রতিবাদীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে । আজ ছিল শুক্রবার । এই দিনটি মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য জুম্মা বার হিসাবে পরিচিত । আজ জুম্মাবারে নামাজের আগে পর্যন্ত তেমন কোন বড় বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেনি । কিন্তু দুপুরের পর থেকেই পরিস্থিতির আমুল পরিবর্তন ঘটে । বাড়তি নিরাপত্তার কারনে প্রশাসন ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখে ।

উত্তর প্রদেশে নামাজের পর পরই শুরু হয়ে যায় বিক্ষোভের তাণ্ডব । পুলিশ প্রশাসন আগে থেকেই যে কোন পরিস্থিতির জন্য সতর্ক ছিল । পুলিশ জানিয়েছে, শহরে এদিন দুপুর পর্যন্ত কোনও সংঘর্ষ হয়নি। যদিও শহরের বাজারগুলি এদিনও ছিল শুনশান। ইন্টারনেট পরিষেবাও বন্ধ রাখা হয়েছে। হুসেনগঞ্জের কাছে কনেশওয়ার মোড়ে একপ্রস্থ জনতা-পুলিশ খণ্ডযুদ্ধ হয়েছে। হুসেনবাদ, দালিগঞ্জ এবং তেলি-ওয়ালি এলাকা থেকেই পুলিশ-বিক্ষোভকারীদের ধস্তাধস্তির খবর পাওয়া গিয়েছে। কুশিনগরের কাছে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে এলে বিক্ষোভকারীরা পুলিশের উপর পাথর ছুড়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে ।  পরিস্থিতি সামাল দিতে কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায় পুলিশ। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে চলে ব্যাপক লাঠিচার্জও।

সংবাদসংস্থা পিটিআইকে লখনউয়ের স্টেট পুলিশ চিফ ওপি সিং জানিয়েছেন মাদেগঞ্জ এলাকায় ঘটেছে অশান্তি। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই ২০ জনকে হেফাজতে নিয়েছে লখনউ পুলিশ। শুধু লখনউ নয়, অশান্তি ছড়িয়েছে লখনউয়ের বাইরেও ।  মুজফফরপুর, বাহরাইচ, বুলন্দশহর, গোরক্ষপুর, ফিরোজাবাদ, আলিগড় এবং ফারুখাবাদ জেলা থেকে এদিন বিক্ষোভ ও হিংসার খবর এসেছে।

বিভিন্ন জায়গায় পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়া হয়েছে। গাড়িতে আগুন লাগানো হয়েছে। পুলিশ লাঠিচার্জ করে ও কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়ে জনতাকে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করেছে। দু’মিনিটের এক ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, রাজ্যের পূর্ব প্রান্তে গোরক্ষপুরে এক সরু গলির এক প্রান্তে দাঁড়িয়ে আছে জনতা। অন্যপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছে পুলিশ। দাঙ্গাহাঙ্গামা ঠেকানোর জন্য তারা প্রস্তুতি নিয়ে এসেছে। পুলিশের কয়েকজনের হাতে ছিল অ্যাসল্ট রাইফেল। জনতাকে দেখা গিয়েছে, পুলিশের উদ্দেশে চিৎকার করছে। পাথর ছুঁড়ছে। কিছুক্ষণ পরে পুলিশকেও জনতার উদ্দেশে পাথর ছুঁড়তে দেখা গিয়েছে।

 

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...