‘দিদিকে বলো’ জনপ্রিয় করার জন্য ময়দানে নেমে পড়েছে তৃণমূলের নেতা ও কর্মীরা

0

নরেন্দ্র মোদির ডিজিটাল ইন্ডিয়ার অনুপ্রেরণায় বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি শুরু করলেন ‘দিদিকে বলো ডট কম’  নামে একটি ওয়েবসাইট । শুধু গ্রাম নয়,  সারা রাজ্যের যেকোনো কোনায় বসবাসকারী,  যেকোনো রাজ্যবাসী তাদের সমস্যার কথা সরাসরি জানাতে পারবেন ‘দিদিকে বলো ডট কম’  এই সাইডে ।   ‘দিদিকে বলো’  নাম দিয়ে তৃণমূলের প্রধান মমতা ব্যানার্জি জনগণের সাথে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপনের জন্য জনসংযোগ মুলক কর্মসূচির ডাক দিয়েছেন ।

শুধু ডাক দিলেই তো হবে না,  তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জির এই উদ্যোগের কথা রাজ্যের ছোট-বড়-মাঝারি সমস্ত তৃণমূলের নেতাকর্মীরা মাঠে নেমে পড়েছেন । সবাইকে এই পরিষেবার কথা জানানোর জন্য,  কিভাবে সাধারণ মানুষের কাছে মমতা ব্যানার্জির এই ‘দিদিকে বলো’  উদ্যোগ পৌঁছাবে ?  সেটি একটি প্রশ্ন ।

কারণ সবাই তো ইন্টারনেট সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নয় ।  এই কারণে শুধু  ‘দিদিকে বলো’ ওয়েবসাইট  তৈরি করে মমতা ব্যানার্জি ক্ষান্ত হননি । তিনি একটি টেলিফোন নাম্বার ৯১৩৭০৯১৩৭০ দিয়েছেন ।  এই নাম্বারে ফোন করে রাজ্যের যেকোনো অধিবাসী নিজেদের সমস্যার কথা,  নিজেদের মনের কথা ওয়েবসাইট ছাড়াও মমতা ব্যানার্জিকে সরাসরি জানাতে পারবেন । এই ভাবেই রাজ্যের এবং শহরের প্রতিটি কোনায় কোনায় পৌঁছাতে চলেছেন আমাদের মুখ্যমন্ত্রী ।

2019 সালের লোকসভা নির্বাচনে আশানুরূপ ফল করতে পারেনি তৃণমূল । অপরদিকে রাজ্যের প্রধান বিরোধীদল  বিজেপি , তাদের  আশাতিরিক্ত ফল করে আগামী বিধানসভা ভোটে শাসকদলের ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলছে ।  যেটা শাসকদলের রক্তচাপ কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেয়ার পক্ষে যথেষ্ট । এরপরে মাঝে মাঝেই হুমকি  দিচ্ছে,  “এই অমুক বিধায়ক ভাগিয়ে নিয়ে গেলাম’  ,এই অমুকের  নাম লিখে রেখেছি,   যখন তখন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবে’ এরকম সব খবর ।

এরপরে গোদের উপর বিষফোঁড়া হয়ে দাঁড়িয়ে কাট মানি প্রসঙ্গ ।  যেখানে রাজ্যের ছোটখাটো নেতা বা বড় ধরনের নেতারাও কোন কাজ করতে পারেনি,  সাধারণ মানুষ বীতশ্রদ্ধ হয়ে উঠেছে সেই তৃণমূল নেতাদের উপর । সেই সময় মমতা ব্যানার্জি ‘দিদি কে বল ডট কম’  নামে ওয়েবসাইট খুলে জনগণের সাথে সরাসরি সংযোগ করার ব্যবস্থা করলেন ।

যদিও মুখ্যমন্ত্রীর এই জনসংযোগ মূলক উদ্যোগ ‘দিদিকে বলো ডট কম’  কত খানিক কার্যকারী হবে,  তা নিয়ে একটা প্রশ্ন শুরুতেই রয়ে গেছে ।  প্রথমত,  ওয়েবসাইট সহজে খুলছে না ।  দ্বিতীয়ত, জনসংযোগ মুলক যে নাম্বারটা দেওয়া হয়েছে,  সেখানে প্রথম দিনই লক্ষাধিক ফোন গেছে ।  একজন মানুষের পক্ষে লক্ষাধিক ফোন এটেম করা কিভাবে সম্ভব হবে ?  সেটা বলা মুশকিল ।

তবে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জি  বলেছেন,  “প্রথমে জনগণ তাদের অভাব অভিযোগের কথা সরাসরি সুপ্রিমোর  কাছে তুলে ধরবেন । এরপর তিনি সেই অভিযোগ জেলা স্তরে সুরাহার  জন্য পাঠাবেন ।  নতুবা বিবেচনা করে রাজ্য স্তর থেকে সুরহা করবেন” ।  সব মিলিয়ে এখন ‘দিদিকে বলো’  কার্যকারী করতে এবং জনপ্রিয় করতে,  জলে,  জঙ্গলে,  মাঠে ময়দানে নেমে পড়েছে তৃণমূলের ছোট থেকে বড় সব ধরনের নেতা- কর্মীরা ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...