এবারের বাজেটে রাজ্যবাসীকে দুর্দান্ত কিছু উপহার দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার

কিছু অসাধারণ প্রকল্প নিয়ে এবারে বাজেট পেশ করল তৃণমূল সরকার। This time, the TMC government presented its budget with some outstanding projects.

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ বিধানসভা ভোট হতে চলেছে আগামীবছর অর্থাৎ ২০২১ শে। আর বিধানসভা ভোটের আগে পেশ হয়ে গেলো তৃণমূল সরকারের পূর্ণাঙ্গ বাজেট। বাজেটে পশ্চিমবঙ্গের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র রাজ্যবাসীর স্বার্থ সুরক্ষার জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেন। এক নজরে জেনে নিন সেগুলো-

  • প্রথমেই আসা যাক পেনশনের কথায়। পূর্ব প্রতিশ্রুতি মত সাধারণ মানুষকে নিরাশ করেননি অর্থমন্ত্রী। অসংগঠিত শ্রমিক পরিবারের সামাজিক সুরক্ষার কথা তিনি যেমন বলেন, তেমনই হাজার টাকা করে পেনশন দেওয়ার ঘোষণায় ২৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দের কথা ঘোষণা করেন তিনি। এই সুবিধেটি একমাত্র সংরক্ষিত তফশিলি এবং আদিবাসী প্রবীণদের জন্য। যাদের অন্য কোনও পেনশনের সুবিধে নেই।
  • এবারে আসা যাক কর্ম সংস্থানের কথায়। অর্থমন্ত্রী এই বাজেটে বেকার যুবক যুবতীদের জন্য নিয়ে আসলো ” কর্মসাথী” প্রকল্প। যার মাধ্যমে বছরে ১ লক্ষ বেকারের কর্মসংস্থান হবে।
  • এবারে প্রবীণ নাগরিকদের জন্য আনা হল ” বন্ধু” প্রকল্প। এই প্রকল্পে বলা হয়েছে যে, যে সব ৬০ বছরের বেশী প্রবীণ নাগরিকরা কোনও রকম পেনশন পাননা তাঁরা মাসে পাবেন ১০০০ টাকা করে।
  • শিক্ষার ক্ষেত্রে অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র ঘোষণা করেন যে, আগামী অর্থবর্ষে রাজ্যে খুলতে চলেছে আরও তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়।
  • আর এই বাজেটে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা হল চা বাগানের ক্ষেত্রে। চা বাগান গুলির আয়কর মুকুবের পাশাপাশি সরকার চালু করবে ” চা সুন্দরী প্রকল্প”। যাতে গৃহহীন শ্রমিকরা পাবেন বাড়ি।

এরম একগুচ্ছ প্রকল্প নিয়ে হাজির হয়েছে রাজ্য সরকার। এছাড়াও অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র আরও বলেন যে, দেশের অর্থনীতির প্রতিকূল পরিবেশের মধ্যেও বাংলা অনেক ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে। ১০০ দিনের কাজ, ক্ষুদ্রশিল্প, রাস্তা তৈরি, স্কিল ডেভেলপমেন্ট, মাইনরিটি স্কলারশিপ সহ আরও বিভিন্ন ক্ষেত্রে যে বাংলা এগিয়ে তাও জানান অর্থমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন যে, বাংলায় জিডিপি বৃদ্ধির হার ১০.৪%। এছাড়াও বাংলায় প্রায় ২২,২৬৬ কোটি বিদেশী বিনিয়োগ হয়েছে বলে দাবী করেন অর্থমন্ত্রী।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...