সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

এবার নিজেই করোনা রোগীদের নিয়ে ভাইরাল ভিডিও শেয়ার করলেন সূর্যকান্ত মিশ্র

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ রাজ্যের প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী তথা সিপিএমের পলিটব্যুরো সদস্য তথা সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র এবার করোনা রোগীদের নিয়ে ভাইরাল ভিডিও পোস্ট করলেন নিজের সোশ্যাল পেজে । বাম নেতার এই ভিডিও পোস্ট নিয়ে ইতিমধ্যে  তীব্র প্রতিক্রিয়া ছড়িয়েছে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক মহলে।

সূর্যকান্ত মিশ্র যে ভিডিও পোস্ট করেছেন, সেটি  জলপাইগুড়ি রানিনগর সেফ হোমে থাকা করোনা পজিটিভ রোগীদের চিকিৎসা পরিসেবা, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ, নিম্নমানের খাবার ইত্যাদি বিভিন্ন অভিযোগ নিয়ে করা হয়েছে । এই ভিডিও পোস্ট করার সাথে সাথে জলপাইগুড়ি জেলার বেশিরভাগ মানুষের মোবাইলে ঘুরে বেড়াচ্ছে। বাম নেতার এই ভিডিও শাসক দল এবং প্রশাসনের অন্দরে অস্বস্তি বাড়িয়ে তুলেছে ।

জলপাইগুড়ি কোয়ারাইন্টাইন সেন্টার।হাসপাতালে কোভিড-১৯ চিকিৎসার ব্যবস্থা অপর্যাপ্ত। বিশেষ করে গুরুতর অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসা জন্য প্রয়োজনীয় সাজ সরঞ্জামের অভাবে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের অবস্থা অনেকটাই 'ঢাল নেই, তলোয়ার নেই নিধিরাম সর্দার'-এর মতো। অবিরাম বৃষ্টি এবং কোথাও কোথাও বন্যাপরিস্থিতি উত্তরবঙ্গের জেলাগুলোর করোনা মোকাবেলার সঙ্কটকে আরো গভীর করে তুলেছে। সরকারকে বারবার বলেও কিছু সুরাহা হয়নি। আজ জলপাইগুড়ি শহরের শুভ্র সাহা 51 বছর বয়স ,42 বছর বয়স মনোজ নন্দী একটু আগে মারা গেলেন, করোনা সংক্রমণে। শুভ্র সাহার বাবা জলপাইগুড়ির প্রখ্যাত চিকিৎসক ছিলেন ডাঃ বি কে সাহা। এখানকার চিকিৎসক,নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মীরাও অসহায় বোধ করছেন। পরিস্থিতির অবনতির জন্য মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং সরকার দায়িত্ব এড়াতে পারবেন না।

Surjya Kanta Mishra यांनी वर पोस्ट केले गुरुवार, २३ जुलै, २०२०

সূর্যকান্ত মিশ্রের এই ভিডিও পোস্টকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে বিবৃতি দিয়েছেন  তৃণমূলের জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি কৃষ্ণ কুমার কল্যাণী ।ঘটনার তীব্র নিন্দা করে তিনি বলেন, “উনি একজন চিকিৎসক। উনি করোনা পজিটিভ রোগীদের ভিডিও ভাইরাল করলেন। এইভাবে ভাইরাল করার আসল উদ্দেশ্য সরকারকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করা। আসলে মমতা ব্যানার্জি যখন রাস্তায় নেমে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করছেন তখন এইসব করার মানে বিজেপির হাত শক্ত করা। আসলে এখন রাম ও বাম এক হয়ে গিয়েছে।”

এই ঘটনায় অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি ডাক্তার সুশান্ত রায় টেলিফোনে বলেন, স্বাস্থ্যকর্মীরা দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে করোনার বিরুদ্ধে পরিষেবা দিয়ে যাচ্ছে। তাঁদের মনোবল ভেঙে দেওয়ার জন্য চক্রান্ত চলছে। অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, “আমরা অ্য়াকোয়াগার্ডের জল দিয়ে থাকি। এছাড়া যা খাবার দেওয়া হয়, তা আমাদের হেলথ অফিসার এবং ডায়েটিশিয়ানদের রেকমেন্ড করা খাবারই দেওয়া হয়।”

মন্তব্য
Loading...