সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

পাক ক্রিকেটার আফ্রিদি এবার সচিনকে নিয়ে ভুলভাল মন্তব্য করে ফের বিতর্কে

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ দিন কয়েক আগেই ইউটিউব একটা ইন্টার ভিউ দিতে গিয়ে নেটিজনদের ট্রোলের শিকার হয়েছিলেন পাক ক্রিকেটার আফ্রিদি । সেখানে তাঁর মন্তব্য “পাকিস্তানের কাছে একসময়ে ক্রমাগত হারের পর ভারতীয় ক্রিকেটাররা নাকি দয়া ভিক্ষা করতেন” শুনে অনেক বিতর্ক সৃষ্টি করেছিল । এবার সচিনকে নিয়ে ভুলভাল মন্তব্য করে ফের বিতর্কে জড়ালেন ।

আফ্রিদি সম্প্রতি জানিয়েছেন, পাক ফাস্ট বলার শোয়েব আক্তারের বল খেলতে গিয়ে নাকি সচিনের পা কাঁপত !  এর আগেও যখন ২০১১ সালে শোয়েব আখতার তাঁর বই ‘কন্ট্রোভার্সিয়ালি ইওরস’ বইতে লিখেছিলেন, সচিন তাঁকে খেলতে ভয় পেতেন। সেই সময়ে আফ্রিদি তাঁর সতীর্থকে সমর্থন জানিয়ে বলেছিলেন, ”স্কোয়্যার লেগে ফিল্ডিং করার সময়ে আমি দেখেছি শোয়েবকে খেলার সময়ে সচিনের পা কাঁপত।”  ন’বছর আগের পুরনো মন্তব্যকে সমর্থন করে ফের আফ্রিদি বললেন, শোয়েবকে খেলতে ভয় পেতেন সচিন তেন্ডুলকর।

শতরান করার পর সচিন

পাকিস্তানের সাংবাদিক জয়নাব আব্বাসের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে  পুরনো প্রসঙ্গ নিয়ে প্রাক্তন পাক অধিনায়ক বলেন, ”সচিন তো আর নিজে বলবে না ভয় পেত। শুধু সচিন নয়, বিশ্বের অনেক ব্যাটসম্যানই কিন্তু শোয়েবের কয়েকটা স্পেল খেলতে ভয় পেত। মিড অফে বা কভারে ফিল্ডিং করার সময়ে আমি সেটা বুঝতে পেরেছিলাম। ক্রিকেটারদের বডি ল্যাঙ্গুয়েজ দেখলেই বোঝা যায় ব্যাটসম্যান চাপে রয়েছে, নিজের সেরা ছন্দে নেই। শোয়েবের সব স্পেলে যে সচিন ভয় পেত, সেটা আমি বলছি না। তবে শোয়েবের এমন কিছু স্পেল ছিল যা খেলতে সচিন-সহ অনেক ব্যাটসম্যানই ভয় পেয়ে ব্যাকফুটে চলে যেত।”

মাত্র কিছুদিন হল, করোনা সংক্রমণ থেকে সেরে উঠে বিতর্কিত মন্তব্য করতে শুরু করেছে আফ্রিদি । এর আগে ভারতীয় ক্রিকেটকে ঠুকে শাহিদ আফ্রিদি বলেছিলেন, পাকিস্তানের কাছে একসময়ে ক্রমাগত হারের পর ভারতীয় ক্রিকেটাররা নাকি দয়া ভিক্ষা করতেন। এবার শুধু সচিন-শোয়েব আক্তার নয়, বিশ্বকাপে সইদ আজমলের মতো তরুণ স্পিনারকে খেলতেও নাকি ভয় পেয়েছিলেন সচিন। এমনই দাবি করেছেন আফ্রিদি।

মাঠে বরাবরই আক্রমানাত্মক শোয়েব

তবে পরিসংখ্যান বিচার করে দেখা যাক ভারতের লিটিল ব্লাস্টার সচিন আর পাক ক্রিকেটার শোয়েব আক্তারের খেলা বিচার করে ।  ২০০৩ এর বিশ্বকাপে আখতারের বোলিং দারুণ সামলে প্রাধান্য বিস্তার করলেও সচিনকে স্মরণীয় শতরানে পৌঁছনোর আগেই ফেরত পাঠিয়েছিলেন রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস। ১৯টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে আখতারের বিরুদ্ধে সচিনের গড় ছিল ৪৫। তাঁকে ৫ বার আউট করেন আখতার। আর ৯টি টেস্টে তিনবার সচিনের উইকেট ঝুলিতে পোরেন তিনি। দেখা যাচ্ছে আক্তারের বিরুদ্ধে সচিনের রানের গড় কোন অংশে কম নয় ।

মন্তব্য
Loading...