সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

অযোধ্যায় রামমন্দিরের ভিত পূজায় উৎসাহী ‘রাম বংশধর’ এই মুসলিমরাও

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ সব কিছু ঠিক থাকলে আগামি মাসের ৫ তারিখ অযোধ্যায় রামমন্দিরের ভিত পুজা হবার কথা । সেখানে ভারতের প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীসহ আরও অনেক বিশিষ্ট নেতা মন্ত্রী আমন্ত্রিত থাকছেন । অযোধ্যা মন্দির ট্রাস্ট করোনা আবহে অতিথি সংখ্যা নির্দিষ্ট করে দিলেও ভিত পুজায় উপস্থিত থাকতে উৎসাহী হয়ে পড়েছেন ‘রামের বংশধর’ মুসলিম রামভক্তরা ।

ভারতে রাম ভক্ত শুধু হিন্দুরা নয় মুসলিমরাও আছেন । করোনার কারণে অনুষ্ঠানে অতিথি সংখ্যা বেঁধে দিয়েছে ট্রাস্ট। তাতে এতটকু দমেননি জামশেদ, ওয়াসিরা। মন্দিরে ঢুকতে না পারলে বাইরেই উদযাপন করবেন, অনড় এই রামভক্তরা।
ফৈজাবাদ জেলার বাসিন্দা জামশেদ খান। তিনি নিজে মুখে বললেন, তারা মুসলিম হলেও রামের বংশধর । রাম তাদের পূর্বপুরুষ । তিনি নিজের মুখে বললেন, তাঁর কথায়, “আমরা ধর্মান্তরিত হয়েছি। মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করেছি। এই ধর্মের আচার পালন করি। তাবলে আমাদের পূর্বপুরুষ বদলে যায় না। আমরা বিশ্বাস করি, রাম আমাদের পূর্বপুরুষ।”

ফৈজাবাদের জামশেদের মত একই সুরে কথা বললেন, ওয়াসি হায়দর।তার বাড়িও ফৈজাবাদে ।  হায়দরের কথায়, ‘‌আমরা ইসলাম ধর্মে বিশ্বাসী। ইসলাম ধর্মাচারণ করি। আমরা এটাও বিশ্বাস করি, যে প্রভু রাম আমাদের পূর্বপুরুষ। সেই রামের মন্দির নির্মাণ দেখাটা দারুণ ব্যাপার হবে।’‌  এরা সকলেই ৫ই আগস্ট প্রচণ্ড উৎসাহী হয়ে আছেন  হিন্দু ভাইদের সঙ্গেই ভূমিপুজোর দিনে আনন্দ উত্‍সব পালন করার জন্য ।

হাজি সইদ জানালেন, ভারতীয় মুসলিমরা রামকে ‘‌ইমাম-এ-হিন্দ’‌ মনে করেন। রশিদ আনসারির ইচ্ছা, অন্তত একবার রাম জন্মভূমিতে ঢুকবেন। বললেন, ‘‌নিরাপত্তা বা অন্য কোনও কারণে সেখানে ঢুকতে না পারলে আমি বাইরেই ভিতপুজো উদযাপন করব।’‌ এই মুসলিম ভক্তদের বিষয়ে আরএসএস-এর সংখ্যালঘু সংগঠন মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের অযোধ্যার প্রধান অনিল সিং বললেন, ভিতপুজোর দিন বহু দূর থেকে রামের মুসলিম ভক্তরা অযোধ্যায় আসছেন। ‘‌এক ভক্ত নিজের বাড়ি ছত্তিশগড় থেকে ইঁট আনছেন রাম মন্দির নির্মাণের জন্য।

আগামি ৫ ই আগস্ট অযোধ্যায় উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং নরেন্দ্র মোদী উপস্থিত থাকছেন । তবে জানা গেছে, ভিত পুজার দিন করোনা বিধির কারণে ২০০ জন অতিথিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে । তবে বিভিন্ন ধর্মের প্রধানদেরও আমন্ত্রণ জানানোর পরিকল্পনা রয়েছে অযোধ্যা রাম মন্দির ট্রাস্টের।

মন্তব্য
Loading...