বিপদসীমা ছাড়িয়ে গেল নদীর জল; বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে 55

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্ক: গত কয়েকদিন ধরে প্রবল বৃষ্টির জেরে মারাত্মক ভাবে উঠে এসেছে যমুনা নদীর জল স্তর । তার উপর আরও 8 লক্ষ কিউসেক জল ছেড়ে দেওয়া হয়েছে হরিয়ানার হাটাণী কুঁদ ব্যারেজ থেকে ।  সোমবার সন্ধ্যায় 1 লক্ষ 43 হাজার কিউসেক জল ছাড়ার পরে আরো বাড়তে শুরু করে যমুনা নদীর জল স্তর ।

পরিসংখ্যান বলছে,  আজ পর্যন্ত এত পরিমান জল কখনো ছাড়া হয়নি । ভারতবর্ষের হিমাচল প্রদেশ,  উত্তরাখণ্ড, ও  পাঞ্জাব এখনো পর্যন্ত বন্যাকবলিত রাজ্য । হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে দিল্লিসহ গোটা উত্তর ভারতে ।  দিল্লির সেচ দপ্তর দাবী করছে,  এরপর যদি আরও জল ছাড়া হয়,  তাহলে দিল্লি শহরেও জল ঢুকে পড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে ।

উত্তর ভারতের ভয়াবহ বন্যায় ইতিমধ্যেই মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে 55 । পরিস্থিতি মোকাবেলায় দফায় দফায় আধিকারিকদের নিয়ে জরুরি বৈঠক করছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল । যমুনা নদীর তীরবর্তী এলাকায় বসবাসকারীদের জরুরী ভিত্তিতে এলাকা খালি করার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন ।এমনকি আগামী দিনে নদীর তীরবর্তী এলাকায় বন্যার জন্য সর্তকতা জারি করা হয়েছে ।  দিল্লির ট্রাফিক পুলিশ বন্যার জন্য যমুনার উপরে লোহার পুল এ যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে । পুলিশের পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত যমুনার উপরে যে লোহার ব্রিজ রয়েছে সেটি খোলা হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে প্রশাসন । যমুনা নদীর জল স্তর  বাড়লেও দিল্লির প্রশাসন চুপচাপ বসে নেই । তারা প্রচার করার পাশাপাশি দুই হাজারের উপরে অস্থায়ী তাঁবুর ব্যবস্থা করেছে । যমুনার তীর ছেড়ে আসা বাসিন্দাদের আশ্রয় দেওয়া হচ্ছে সেই সমস্ত অস্থায়ী তাঁবুতে । আগামী দুই একদিনের  মধ্যে যদি আবার বৃষ্টি হয়,  তাহলে দিল্লিবাসীর কপালে যথেষ্ট দুর্ভোগ রয়েছে এ কথা স্বীকার করে নিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল । তিনি দিল্লি বাসীর কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন তারা যেন নিজেরা নিজেদের থেকেই আগাম সর্তকতা অবলম্বন করে চলে । 

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...