হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা নিয়ে নয়া নির্দেশিকা রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের

হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা কালীন কি কি করা উচিৎ বা কি ভাবে নিয়ম মেনে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে তার একটা গাইডলাইন বা নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর ।

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ ক্রমশ ভয়াল আকার ধারন করতে চলেছে করোনা সংক্রমণ । কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে যতদূর যাওয়া সম্ভব চেষ্টা করা হচ্ছে এই সংক্রমণ আটকানোর জন্য । সারা দেশ জুড়ে লকডাউন কার্যত কারফিউ-এর আকার নিয়েছে । রাজ্য সরকার হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়েছে সকলকে । পাশাপাশি হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা কালীন কি কি করা উচিৎ বা কি ভাবে নিয়ম মেনে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে তার একটা গাইডলাইন বা নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর ।

রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য দপ্তর যে নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে সেখানে স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে

১।হোম কোয়ারেন্টাইনে আলো-বাতাস যুক্ত ঘরে থাকা অবশ্যই প্রয়োজন।

২। একা একটা ঘরে থাকা সম্ভব না হলে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে অবশ্যই এক মিটার দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে।

৩।হোম কোয়ারেন্টাইনে ব্যবহার করতে হবে আলাদা বাথরুম।

৪। পরিবারের বয়স্ক, শিশু, গর্ভবতী এবং কেউ অসুস্থ থাকলে তাঁদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখা অবশ্যই প্রয়োজনীয়।

৫। এই পরিস্থিতিতে কোনওভাবেই কোনও সামাজিক অনুষ্ঠানে যাওয়া উচিত নয়। প্রধানমন্ত্রী এবং রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বারবার জনসাধারণের কাছে আবেদন জানিয়েছেন যাতে কেউ আগামী তিন সপ্তাহ বাড়ির বাইরে না যান।

৬। আলাদা পাত্রে খাবার খাওয়া প্রয়োজন। আপনার খাবারের পাত্র যেন অন্য কেউ ব্যবহার না করে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। বারবার সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিন। অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করুন। ২৪ ঘণ্টাই মাস্ক পরে থাকা প্রয়োজন। প্রতি ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা অন্তর মাস্ক পরিবর্তন করুন। পুরনো মাস্ক পুড়িয়ে ফেলুন বা মাটিতে পুঁতে দিন।

৭। জ্বর-সর্দি-কাশি বা শ্বাসকষ্ট হলে অবিলম্বে নির্দিষ্ট হেল্পলাইন নম্বরে যোগাযোগ করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৮। পরিবারের কোনও একজন নির্দিষ্ট সদস্যই আপনার দেখাশোনা করবেন।

৯। বালিশ-বিছানা ঝাড়া থেকে বিরত থাকুন। ঘর পরিষ্কারের সময় মুখে মাস্ক আর হাতে গ্লাভস পরে নিন। এবং কাজ শেষে অতি অবশ্যই গ্লাভস খুলে ভাল করে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিন।

১০। বাড়িতে এখন আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব কাউকে আসার অনুমতি দেবেন না।

১১। চেয়ার-টেবিল, দরজার হাতল কিংবা চেয়ারের হাতল ,জানলা এসব রোজ ব্লিচিং সলিউশন দিয়ে পরিষ্কার করা প্রয়োজন।

১২। সাধারণ ভাবে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এইসময় স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা প্রতিদিন টেলিফোনে আপনার শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর নেবেন। তাঁদের সঙ্গে সহযোগিতা করুন।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More