মুখ্যমন্ত্রী যতই অজুহাত দিক কেন্দ্রীয় হারে ডি এ না দিলে, আবার আন্দোলনের পথে যাবার হুঁশিয়ারি দিল রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা

0

নিউজ ডেক্স,  কলকাতাঃ ডিএ নিয়ে  রাজ্য সরকারি কর্মচারী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে একটা চাপা উত্তর চাপানউতোর চলছে । সম্প্রতি কেন্দ্রীয় হারে  রাজ্য সরকারকে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা (ডিএ) দিতে হবে বলে জানিয়েছে স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুনাল । 

বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছে,  এই আদেশ জারি হওয়ার ফলে বেশ বড় একটা ধাক্কা খেয়েছে রাজ্য প্রশাসন । কিছুদিন আগে মধ্যমগ্রামে এক জনসভায় মমতা ব্যানার্জি বলেছিলেন,  রাজ্যে এ বছর প্রচুর টাকা ঋণের জন্য খরচ হয়ে যাবে । এর মধ্যে ডিএ বাড়ালে যে অতিরিক্ত টাকা দরকার,  সেই টাকা রাজ্য সরকারের কোষাগারে এই মুহূর্তে নেই ।

বর্তমানে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী এবং রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতার মধ্যে ব্যবধান রয়েছে অনেক প্রায় 29 শতাংশ ।  দীর্ঘদিন ধরে রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা বিক্ষিপ্তভাবে আন্দোলন করলেও রাজ্য সরকার তেমন কোন গুরুত্ব দেয়নি । যার ফলে 2010 সালের পর থেকে একবার মাত্র মহার্ঘ ভাতা অর্থাৎ ডিএ দেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের । তবে স্যাট  ( স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুনাল)  কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের হারে  মহার্ঘভাতা দিতে হবে বলে জানালেও এই নিয়ে একটা আশঙ্কা থেকেই গেছে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে ।

রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে আশঙ্কার মেঘ তৈরি হয়েছে,  আদৌ কি রাজ্য সরকার তাদের মহার্ঘ ভাতা দেবে ? যদিও তারা মানসিকভাবে তৈরি হচ্ছে,  যদি রাজ্য সরকার মহার্ঘভাতা দিতে না পারে,  তাহলে তারা তাদের প্রাপ্য আদায় করার জন্য যতদূর যেতে হয়,  ততদূর পর্যন্ত যাবে বলে জানা গেছে ।  তারা জানিয়েছে,  যদি দরকার হয় তাহলে মামলা লড়ার জন্য সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত যেতে পারে । 

নবান্ন সূত্রে খবর,  রাজ্য সরকারকে এবছর   ঋণের জন্য প্রায় 56 হাজার কোটি টাকা খরচ করতে হবে । এর মধ্যে পূর্ববর্তী  বামফ্রন্ট সরকার মহার্ঘ ভাতা ঠিকঠাকমতো দেয়নি । সেই হিসাবে এককালীন ভাতা সরকারি কর্মচারীদের দিতে গেলে যে পরিমাণ অর্থ দরকার হবে,  তা রাজকোষে নেই ।  সুতরাং স্যাট  (স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুনাল)  যতই আদেশ জারি করুক না কেন,  প্রয়োজন হলে রাজ্য সরকার সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করবে মহার্ঘ ভাতা বিষয়ে । অবশ্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আশার কথা জানিয়েছেন যে,  মহার্ঘভাতা দিতে আপত্তি নেই সরকারের । কিন্তু এতগুলো টাকা একসাথে দেওয়া কোনভাবেই সম্ভব নয় । 
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...