ক্যাসিনো ও স্পা সেন্টারে ব্যবসা নিয়ে তোলপাড় বাংলাদেশের রাজধানী

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্ক: ক্ষমতা বদলের সাথে টেন্ডারবাজি, ক্যাসিনো, স্পা সেন্টার ক্ষমতাসীন দল দখল করে। অনেক সময় এসবের সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ দল পরিবর্তন করে। চলতে থাকে তাদের ব্যবসা। বাংলাদেশের বর্তমান ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ এসব কর্মকান্ডে বিরক্ত হয়ে তার দলের নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দ্বিধা বোধ করছে না।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগের সহযোগি সংগঠন যুবলীগের নেতা এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীমকে গ্রেফতার করা হয়। ‘টেন্ডার কিং’ হিসেবে পরিচিত শামীম গ্রে’ফতার হওয়ার পর তার সম্পর্কে একের পর এক নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে। সূত্র বলছে, জি কে শামীমের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত এক ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরেই পূর্ত মন্ত্রণালয়ে দাপটের সঙ্গে ঘোরাফেরা করেন। তার নাম জিয়া। অথচ তিনি পূর্ত মন্ত্রণালয়ের কোনো কর্মকর্তা বা কর্মচারী নন। আবার তিনি কোনো রাজনৈতিক নেতাও নন।

তবে পূর্ত মন্ত্রণালয়ের সর্বস্তরে তার প্রভাব চোখে পড়ার মতো। সবাই তাকে দেখলে সালাম দেয়, সমীহ করে। লিফটম্যানরা তটস্থ হয়ে পড়ে। মন্ত্রীর কক্ষে ঢোকার আগেই দরজা খুলে দাঁড়িয়ে থাকেন কর্মচারীরা।জানা যায়, বাংলাদেশ থেকে যে কয়জন সিঙ্গাপুরে মেরিনা বে ক্যাসিনোতে নিয়মিত জুয়া খেলতে যান জিয়া তাদের অন্যতম। সিঙ্গাপুরের ক্যাসিনোতে জিয়া হাজার হাজার ডলার উড়িয়ে দেন অবলীলায়। দেশের মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় চলাফেরা করেন হেলিকপ্টারে।প্রভাবশালীদের দামি উপঢৌকন দিতেন। তাতেও কাজ না হলে উঠতি মডেল কিংবা সুন্দরী তরুণী ব্যবহার করে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে ম্যানেজ করতেন।

ক্যাসিনো পাড়ায় জানা যায় অন্যতম স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছার এবং যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর একেএম মোমিনুল হক সাঈদ এখন দেশের বাইরে।

গত রাতে রাজধানীর গুলশান-১ নম্বরের নাভানা টাওয়ারের অভিযানে তিনটি স্পা সেন্টার থেকে ১৬ জন নারী ও তিন জন পুরুষকে আটক করেছে পুলিশ। স্পা সেন্টারগুলো হলো- লাইভ স্টাইল হেল্থ ক্লাব অ্যান্ড স্পা অ্যান্ড সেুলন, ম্যাঙ্গো স্পা ও রেডিডেন্স সেলুন-২ অ্যান্ড স্পা। স্পার আড়ালে অনৈতিক কর্মকাণ্ড ও অবৈধ ব্যবসার অভিযোগে এখানে অভিযান পরিচালিত হচ্ছে বলে জানান তিনি।

র‌্যাবের হাতে গত শুক্রবার আটক হয়েছেন দেশের আলোচিত ঠিকাদার জিকে শামীম। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বর্তমানে আমেরিকা রয়েছেন মোল্লা কাওছার। সম্প্রতি তার দেশে ফেরার কথা থাকলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার আগে দেশে ফিরবেন না। এসব বিষয়ে তার বক্তব্য জানতে এ প্রতিবেদক হোয়াটসঅ্যাপ ও মেসেঞ্জারে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি সাড়া দেননি।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.