কয়েক মিলিয়ন প্লাস্টিক কণা বিদ্যমান টি-ব্যাগ এর চায়ে, বলছেন গবেষকরা

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্ক: সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর কিংবা সন্ধ্যায় ক্লান্ত অবস্থায় বাড়ি ফেরার পর এক কাপ চা না হলে মনটা ভারি আনচান করে। এক কথায় বলতে গেলে, পূর্ণবয়স্ক মানুষদের মধ্যে ৯৯ শতাংশই চা-খোর। তবে বর্তমান ব্যস্ত যুগে আগের মতো জল ফুটিয়ে, তাতে চা পাতা মিশিয়ে ছেকনি দিয়ে ছেকে চা তৈরি করার মতো সময় বা ক্ষমতা নেই বেশীরভাগেরই; একারণে মানুষের সুবিধার কথা ভেবেই বাজারে টি-ব্যাগ নিয়ে এসেছে বিভিন্ন কোম্পানি। জল ফুটিয়ে কাপে নিয়ে তাতে টি-ব্যাগটি কিছুক্ষণ চুবিয়ে রাখলেই ২ মিনিটে তৈরি গরম চা।

তবে সম্প্রতি এক গবেষণায় টি-ব্যাগ সম্পর্কে উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য। এতদিন পর্যন্ত আমাদের ধারণা ছিল, টি-ব্যাগ গুলো মূলত কাগজের প্যাকেটের মধ্যে চা পাতা ভরে প্রস্তুত করা হয়ে থাকে, কিন্তু সদ্য প্রকাশিত এই গবেষণায় বলা হচ্ছে, কাগজ ছাড়াও এতে প্রায় ৯৬ শতাংশ পলিপ্রোপিলিন রয়েছে, যা টি-ব্যাগ সিল করতে এবং আকৃতি তৈরিতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এ ধরনের টি-ব্যাগ’গুলো চা-এর মধ্যে মাইক্রো এবং ন্যানো প্লাস্টিক ছেড়ে দিতে পারে, যা মানবদেহের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর।

একারণে সম্প্র‌তি কয়েকটি ব্র্যান্ড তাদের পণ্য থেকে সম্পূর্ণভাবে পলিপ্রোপিলিন নির্মূল করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু অন্যান্যরা এখনও পর্যন্ত সমাধান খুঁজে পাচ্ছেন না; যার অর্থ, আমাদের প্রিয় অনেক ব্র্যান্ডের টি-ব্যাগে প্লাস্টিকের কণা বিদ্যমান।

টি-ব্যাগ এর এই বিষয়টি নিয়ে পরীক্ষা করার উদ্দেশ্যে সম্প্রতি গবেষকরা বাজার থেকে ৪টি ব্র্যান্ডের টি-ব্যাগ কিনেছিলেন। এরপর তারা টি-ব্যাগ’গুলো কেটে তার থেকে চা পাতা বের করে খালি ব্যাগগুলো ধুয়ে ফেলেন। এরপর খালি ব্যাগ’গুলো জলে মিশিয়ে ইলেকট্রন মাইক্রোস্কোপি ব্যবহার করে গবেষকরা পরীক্ষা চালান। সেই সময় তাঁরা দেখতে পান, গরম জলে মেশানো তাপমাত্রায় একটি টিব্যাগ থেকেই প্রায় ১১.৬ বিলিয়ন মাইক্রো প্লাস্টিক এবং ৩.১ বিলিয়ন ন্যানো প্লাস্টিক কণা ছড়িয়ে পড়ছে।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...