সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

রাজ্য বিজেপিতে গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব ! সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিতে চাইলেন দিলীপ ঘোষ !

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ এবার মুকুল রায়কে কেন্দ্র করে রাজ্য বিজেপিতে গোষ্ঠী কোন্দল শুরু হল । যার জেরে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ রাজ্য সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিতে চাইলেন ! রাজ্য বিজেপির মধ্যে  ‘কাজের লোকদের’ নিষ্ক্রিয় করে ‘কাছের লোকেদের’ বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে এমন অভিযোগ উঠেছে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে । আর অভিযোগ এসেছে মুকুল রায়ের ঘনিষ্ঠ বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং-এর কাছ থেকে ।

রাজ্য বিজেপির ঘনিষ্ঠ মহল থেকে শোনা যাচ্ছে, সোমবার দিল্লিতে কলকাতা, দমদম ও বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বিধানসভা আসনগুলো নিয়ে বৈঠক ছিল। জানা গিয়েছে, সেখানে দলের রাজ্য সভাপতির বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অর্জুন সিং।এরপরই রাজ্য সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিতে চাইলেন দিলীপ ঘোষ।যদিও বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এই খবর অস্বীকার করেছেন।

প্রাক্তন তৃণমূল নেতা এবং বর্তমান বিজেপি বিধায়ক অর্জুন সিং মুকুল রায়ের ঘনিষ্ঠ । বলতে গেলে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবার পিছনে মুকুল রায়ের হাত ছিল । জানা গেছে, এদিন  কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনে নাম না করে দিলীপ গোষ্ঠীর তুমুল সমালোচনা করেন তিনি। অর্জুন বলেন, এভাবে সংগঠন পরিচালনা করলে ২০২১-এ পশ্চিমবঙ্গ দখল যে সম্ভব নয়। এর পরই ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন দিলীপ ঘোষ ।

এর আগে দিল্লী থেকে দলীয় বৈঠকের মাঝে হঠাৎ করে রাজ্যে ফিরে আসায় মুকুল রায়কে নিয়ে শুরু হয়েছিল জল্পনা । অনেকের মুখেই শোনা যাচ্ছিল, মুকুল রায় নাকি ফের তৃনমূলে যোগ দিতে চলেছেন ! তবে এই বিষয়ে  বিজেপির সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চট্টোপাধ্যায় বলেন, বিজেপিতে তৃণমূলের মতো ঝগড়া হয় না। সংবাদমাধ্যমে এসব খবর ছড়াতেই প্রতিক্রিয়া জানান দিলীপ ঘোষও। তিনি জানান, আমরা দিল্লি আসার পর থেকেই সংবাদমাধ্যমে পরিকল্পনামাফিক নানা কথা রটাচ্ছে তৃণমূল। বিজেপি কর্মীদের বিভ্রান্ত করতে এই কাজ করছে তারা।

মন্তব্য
Loading...