সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়ে মহারাষ্ট্রে কিসের ইঙ্গিত দিল শিবসেনা ! গেরুয়া শিবির কি “সিঁদুরে মেঘ দেখছে” এবার !

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ এবার গেরুয়া শিবিরে ভাঙ্গন ধরালেন শিবসেনা সদস্য অরবিন্দ সাওন্ত । গেরুয়া শিবিরের মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করে শিবসেনা সদস্য অরবিন্দ সাওন্ত ফের বড়সড় প্রশ্নের মুখে ঠেলে দিলেন গেরুয়া শিবিরকে ।

বেশ কয়েকদিন ধরেই টালবাহানা চলছিল শিবসেনা-বিজেপির মধ্যে । অবশেষে, দীর্ঘ জলঘোলার পরে রবিবারেই বিজেপি রাজ্যপালকে জানিয়ে দেয় মহারাষ্ট্রে তারা সরকার গড়বে না । এর পরেই রাজ্যপাল ভগত সিং কোশিয়ারি দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হিসেবে শিবসেনাকে সরকার গঠনের জন্য বলেন । আজ সোমবার সন্ধে সাড়ে সাতটা পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে শিবসেনাকে ।

রাজ্যপাল ভগত সিং কোশিয়ারির নির্দেশের পরে মহারাষ্ট্রে নড়েচড়ে বসেছে শিব সেনা ।  স্বল্প সময়ের মধ্যে সরকার গঠনের সংখ্যা অর্জনের জন্য জোর তৎপরতা চলছে । উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, শোনা যাচ্ছে, শিবসেনার তরফ থেকে এনসিপি এবং কংগ্রেসের সমর্থন নেওয়ার চেষ্টা চলছে । শারদ পাওয়ারের দল আগেই জানিয়ে দিয়েছিল, শিবসেনা এনডিএ ছেড়ে বেরিয়ে এলেই তারা সমর্থন দেবে ।তাহলে এবার কি  সেই পথেই হাঁটতে চলেছে শিবসেনা ? এই নিয়ে জল্পনা চলছে রাজনৈতিক মহলে ।

দক্ষিণ মুম্বই থেকে শিবসেনার টিকিটে লোকসভায় নির্বাচিত সাওন্ত ভারী শিল্পমন্ত্রকের দায়িত্বে ছিলেন । তাঁর মন্ত্রিসভা থেকে বেরিয়ে আসা নিয়ে মনে করা হচ্ছে সেই কারণেই মন্ত্রি‌ত্ব ছাড়লেন অরবিন্দ সাওন্ত । উল্লেখ্য,  নরেন্দ্র মোদী মন্ত্রিসভায় শিবসেনার একজনই সদস্য ছিলেন।

পরিসংখ্যান বলছে,  গত অক্টোবরে মহারাষ্ট্র বিধানসভার নির্বাচনে ২৮৮ আসনের মধ্যে বিজেপি পেয়েছে ১০৫ টি আসন, সঙ্গী শিবসেনা পেয়েছিল ৫৬ টি আসন। এছাড়াও এনসিপি ৫৪ এবং কংগ্রেস ৪৪ টি আসন পেয়েছে । নিয়ম অনুযায়ী, প্রথমে রাজ্যপাল বৃহত্তম দল হিসেবে বিজেপিকে ডেকেছিল। শুরুতে মনে করা হয়েছিল জোট বেঁধে ভোট লড়া বিজেপি ও শিবসেনা সরকার গড়বে । কিন্তু দীর্ঘ সময় ধরে দুই দলের মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় এখনও পর্যন্ত মহারাষ্ট্রের সরকার গড়া নিয়ে অনিশ্চয়তা চলছে । রাজনৈতিক মহল মনে করছে সোম‌বার সরকার গঠন নিয়ে নতুন সমীকরণ গড়ে উঠবে।

মন্তব্য
Loading...