সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

বঙ্গ বিজেপির অন্দর কোন্দলে প্রশান্ত কিশোরের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন !

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ ২০২১ শের বিধানসভা ভোটের আগে একদিকে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল যেমন নিজেদের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি করে চলেছে, অন্য দিকে প্রধান বিরোধী দল রাজ্য বিজেপির ভিতরের সাংগঠনিক দুর্বলতা ক্রমশ প্রকাশ্যে আসছে । মুকুল-দিলীপের মধ্যে দূরত্ব তৈরির মাঝে বঙ্গ বিজেপিতে অবতীর্ণ হতে চাইছেন তথাগত রায় । মুকুল রায় এবং দিলীপ ঘোষের এই দ্বন্দ্ব জিইয়ে রাখার জন্য তথাগত নিশনা করেছেন প্রশান্ত কিশোরকে এমন সন্দেহ করা হচ্ছে ।

আগামী বিধানসভা ভোটে বিজেপির হয়ে রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রীর দাবীদার হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাইছেন তথাগত রায় । সম্প্রতি মেঘালয়ের রাজ্যপালের পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে সাংবিধানিক সমস্ত দায় দায়িত্ব ঝেড়ে ফেলে রাজ্য বিজেপিতে নয়া প্রতিদ্বন্দ্বী রূপে সক্রিয় হতে চাইছেন তথাগত রায়। যার ফলস্বরূপ রাজ্য বিজেপিতে আরও একটি গোষ্ঠী মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে শুরু করেছে। যার জেরে রাজনৈতিক মহল মনে করছে বিজেপিতে চাপ বাড়বে মুকুল রায় এবং দিলীপ ঘোষদের উপর। আর এই অন্দর কোন্দলে অনেকেই সন্দেহ করছেন প্রশান্ত কিশোরের ভুমিকা রয়েছে কিনা সেই বিষয় নিয়ে !

বঙ্গ বিজেপির  নতুন সংকটের সৃষ্টি্র পিছনে  তৃণমূলের ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোর বঙ্গ রাজনীতিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিকল্প মুখ হয়ে ওঠার চেষ্টায় বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদকে নিশানা করতে চলেছেন বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ ধারনা করছেন। সে কারণে বিজেপিতে যে অস্থিরতার সৃষ্টি হয়েছে, তার জন্য তথাগতও অর্জুন সিংয়ের মতো প্রশান্ত কিশোরকে দায়ী করেছেন। তৃণমূলের ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরই বিজেপিতে অশান্তি লাগিয়ে রাখতে চাইছেন বলে তাঁর অভিযোগ।

প্রশান্ত কিশোরকে নিশানা করে তথাগত রায় বলেছেন, তৃণমূলের ভোট কৌশলী বিজেপিতে ঝগড়া লাগানোর একটা প্রক্রিয়া চালিয়ে যাচ্ছেন। এটা তৃণমূলের রাজনৈতিক কৌশল। মুকুল-দিলীপের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা লাগিয়ে রাখতে পারলে আদতে তৃণমূলের লাভ। সক্রিয় রাজনীতিতে ফিরলে তথাগতকে নিয়ে কৌশল বঙ্গ রাজনীতির নতুন আলোচ্য বিষয় হয়ে ওঠা তথাগত রায় মনে করেন, তিনি রাজনীতিকে ফিরলে সেখানেও আরও একটা চরিত্র পেয়ে যাবেন প্রশান্ত কিশোর। ফলে বিজেপিতে অশান্তি পাকিয়ে রাখার একটা চেষ্টা তিনি করে যেতে চাইবেন। কিন্তু তাঁর এই অভিষন্ধি সফল হবে না। কেননা তিনি চান না বিজেপিতে অশান্তি লাগাতে। বিজেপি যদি চায়, তবেই তিনি এগোবেন।

তবে আসল খবর  তথাগত বিজেপিতে সক্রিয় হলে ইগোর লড়াই বাধবে বা বাধানো হবে, এটা নিশ্চিত। রাহুল সিনহা ইতিমধ্যেই তথাগত রায়ের ফিরে আসার বার্তাকে স্বাগত জানিয়েছেন। তবে এমনিতে দিলীপ-মুকুলকে নিয়ে ল্যাজেগোবরে হয়ে যাচ্ছে বিজেপি। প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি তথাগত রায় আসা মানে বিপত্তি বাড়বেই বিজেপিতে এমনটাই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মন্তব্য
Loading...