সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

পাকিস্থান তার নিজের মৃত্যু নিজেই ডেকে আনবে,এক জনসভায় বললেন প্রধানমন্ত্রী

0

সারা ভারত জুড়ে যখন ভোটের আবহাওয়া গরম, সব পার্টির নেতারা যখন মিথ্যে আশ্বাস দিয়ে জনগণের মনকে বিষিয়ে দিতে চাইছে তখনই প্রধানমন্ত্রীর “ম্যায় ভি চৌকিদার” এর সভা জনগণকে এনে দিলো অনেকটা স্বস্তির আশ্বাস। তিনি প্রায় ৫০০জায়গায় এই জনসভা করেছেন।অন্যান্যো পার্টীর জনসভায় সব নেতারা যখন প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর উন্নয়নকে কাঠগোড়ায় দাড় করাতে ব্যাস্ত তখন প্রধানমন্ত্রীর “ম্যায় ভি চৌকিদার” এর সভায় অন্যান্যো পার্টীর কোনও নেতাদেরকে একবারও কাঠগোড়ায় দাড় না করিয়ে শুধু দেশের উন্নয়নকে প্রাধান্য দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন যে তিনি এক ও অদ্বিতীয়।

তিনি পাকিস্থান সম্পর্কে বলেন যে, বর্তমানে পাকিস্থান তাদের এয়ার স্পেস গুলকে আবার খুলে দিয়েছে এবং ভেবেছে যে প্রধানমন্ত্রী ইলেকশান নিয়ে ব্যাস্ত তাঁর কোনো নজর নেই দেশের অন্যান্য অবস্থার দিকে কিন্তু তারা ভুলে গেছে যে বর্তমানে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, যার প্রথম ও প্রধান প্রাধান্য হল দেশ।তিনি অতন্ত্র প্রহরীর মতো পাহারা দিয়ে চলেছেন দেশকে।তিনি আরও বলেন যে, আমরা অনেক সময় নষ্ট করেছি ভারত-পাকিস্থান সমঝোতার পেছনে।পাকিস্থান তার নিজের খোঁড়া গর্তে নিজেই পড়বে।তাদেরকে আর গুরুত্ব না দিয়ে আমাদের উচিৎ এগিয়ে চলা।

জনগন যখন তাঁকে বালাকোটের এয়ার স্ট্রাইক এর জন্য অভিনন্দন জানান তখন তিনি বলেন, যে এতে তাঁর কোনও কৃতিত্ব নেই সবটাই দেশের জাওয়ান এবং বর্ডার সিকীউরিটি ফোর্সের কৃতিত্ব।তাঁর পুরো ভরসা ও বিশ্বাস ছিল তাদের দক্ষতার ওপর এবং নিয়মানুবর্তিতার ওপর।তাই তিনি তাদেরকে পুরো স্বাধীনতা দিয়ে ছিলেন যেকোনো মুভ করার জন্য।

তিনি আরও বলেন যে, দেশের লোক রাজা ,মহারাজা, বা হুকুমাত চায়না না । চায় শুধু একজন চৌকিদার যিনি সবসময় অতন্ত্র প্রহরীর মতো পাহারা দেবে।তিনি অন্যান্য নেতাদের মিথ্যা আশ্বাস নিয়ে বলেন যে, ভারত প্রায় ৪০ বছর ধরে সন্ত্রাসবাদের জ্বালায় জর্জরিত কিন্তু আগে কখনই  সন্ত্রাসবাদকে কড়া মোকাবিলা দেওয়া হয়নি বর্তমানে পরপর সারজিকাল স্ত্রাইকের পর আতঙ্কবাদিদের মোটামুটি আয়ত্তে আনতে সক্ষম হয়েছে দেশ।

তিনি আরও বলেন যে, এতদিন যেখানে ওড়িশাতে  বিজেপী কে দুর্বল ভাবা হতো সেখানে ওড়িশাতে বিজেপী এখন এতটাই শক্ত যে এই ভোটে সবাইকে চমকে দিয়ে ওড়িশাই এখন ২য় ত্রিপুরাতে পরিনত হবে।

মোদীজী আবারও প্রমাণ করলেন তিনি ব্যাতিক্রমী।তাঁর প্রতিটি ভাষণ এবং পদক্ষেপ স্বতন্ত্র এবং জনগণের স্বার্থে নেওয়া। এখন দেখার যে দেশবাসী তাঁর সঙ্গ কতটা দেয় এবং কোন সরকার গঠন হয়।

 

 

 

 

 

মন্তব্য
Loading...