কাশ্মীর ইস্যুতে নিজেদের পরাজয় স্বীকার করে নিলো পাকিস্তান

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্ক: চলতি বছরের বিগত ৫ই সেপ্টেম্বর তারিখে ভারত সরকার কতৃক ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ এবং ৩৫এ অনুচ্ছেদ দুটি খারিজ করার সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর থেকেই সীমান্তবর্তী জম্মু ও কাশ্মীর দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত হয়। কিন্তু ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তকে একেবারেই মেনে নিতে পারেনি প্রতিবেশী রাষ্ট্র পাকিস্তান।

নিজেদের স্বার্থ বিঘ্নিত হওয়াই কাশ্মীর নিয়ে অসন্তুষ্ট পাকিস্তান। একারণে তারা আন্তর্জাতিক মহলে বারংবার ভারতের বিরুদ্ধে কাশ্মীরে নির্যাতনের অভিযোগ জানিয়েছে। কিন্তু তাতেও বিশেষ কিছু ফল না পাওয়াই অবশেষে নিজেদের পরাজয় স্বীকার করে নেয় পাকিস্তান।

কাশ্মীর ইস্যুতে সম্প্রতি রাষ্ট্রপুঞ্জে ডসিয়ার জমা দিয়েছে তারা। তাতে কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলে ভারত সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে তারা। এপ্রসঙ্গে ভারতের জাতীয় কংগ্রেস দলনেতা রাহুল গান্ধী’র মন্তব্য উদ্ধৃত করে তারা জানিয়েছে, জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের স্বাধীনতা ও নাগরিক অধিকার খর্ব হচ্ছে। এর ফলে আগামী ২৭শে সেপ্টেম্বর তারিখে রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভায় পাশাপাশি দাড়িয়ে বক্তৃতা দেবেন নরেন্দ্র মোদী এবং ইমরান খান।

এমতাবস্থায় সম্প্রতি পাক সরকার জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে নিজেদের কোণঠাসা হয়ে পড়ার কথা স্বীকার করে নিলো। তাদের দেশের একটি সংবাদ মাধ্যমে এই কথা মেনে নিলেন খোদ ইমরান খানের মন্ত্রী-ই।

১২ই সেপ্টেম্বর, বৃহস্পতিবার কাশ্মীর ইস্যুতে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন পাক অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার ইজাজ আহমেদ শাহ। সেখানে তিনি বলেন, “আমরা জানালাম ভারত কার্ফু জারি করে কাশ্মীর অবরুদ্ধ করে রেখেছে। ওষুধপত্রও পাচ্ছেন না উপত্যকার মানুষ। কিন্তু আমাদের বিশ্বাসই করছে না আন্তর্জাতিক মহল। ভারতের উপরই আস্থা ওদের।”

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...