এবার নাগরিকত্ব বিরোধী আইনের প্রতিবাদে মতুয়াদের একাংশ, নেতৃত্বে মমতাবালা ঠাকুর

জ্যের রাজনীতিতে বেশ বড় একটা অংশ অধিকার করে রেখেছে মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষ । রাজনীতির ঘোলা জলে মতুয়াদের নিয়ে মাছ ধরেছে অনেক রাজনীতি দল । এতদিন নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে মতুয়াদের একটা অংশ সওয়াল করলেও, এখন কেন্দ্রীয় আইনের বিপক্ষে নেমে সরাসরি আন্দোলনের পথে হাঁটতে চলেছেন প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর । মতুয়াদের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন বীণাপাণি দেবী

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ এতদিন  রাজ্যের মতুয়া সম্প্রদায় নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে রাস্তায় নামেনি । কিন্তু এবার প্রাক্তন সাংসদ এবং ঠাকুর বাড়ির অন্যতম সদস্যা মমতাবালা ঠাকুর মতুয়াদের একটা বড় অংশকে নিয়ে সরাসরি আন্দোলনের পথে নামলেন । এমন কি, অনেকটা দলীয় নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঢঙ্গে কেন্দ্রীয় হুশিয়ারি দিলে জানালেন,  ‘নাগরিকত্বের জন্য জীবন দিতেও রাজি’ ।

রাজ্যের রাজনীতিতে বেশ বড় একটা অংশ অধিকার করে রেখেছে মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষ । রাজনীতির ঘোলা জলে মতুয়াদের নিয়ে মাছ ধরেছে অনেক রাজনীতি দল । এতদিন নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে মতুয়াদের একটা অংশ সওয়াল করলেও, এখন কেন্দ্রীয় আইনের বিপক্ষে নেমে সরাসরি আন্দোলনের পথে হাঁটতে চলেছেন প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর । মতুয়াদের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন বীণাপাণি দেবী । কিন্তু তাঁর মৃত্যুর আগে থেকেই ঠাকুর বাড়ির সসদ্যদের মধ্যে বিভেদের পাঁচিল উঠে  ।

লোকসভা ভোটের আগে নরেন্দ্র মোদী ঠাকুরনগরের নির্বাচনী প্রচারে এসে  এক বিশাল জন সভায় মতুয়াদের নাগরিকত্ব নিয়ে ভরসা দেন । এমন কি ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী এবং বিজেপির সভাপতি অমিত শাহকে পর্যন্ত বলতে শোনা গেছে,  নাগরিকত্ব আইনের ফলে মতুয়ারা উপকৃত হবেন৷ মমতাবালা ঠাকুর নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে জানিয়েছেন  ‘কেন্দ্রের আইনের বিরুদ্ধে মতুয়া সমাজের মিছিল। বছরের পর বছর ধরে আমাদের অনুপ্রবেশকারী করে রাখা হয়েছে। আমাদের নিঃশর্ত নাগরিকত্ব দিতে হবে। নিঃশর্ত নাগরিকত্ব না পাওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাব। নাগরিকত্বের জন্য জীবন দিতেও রাজি আছি’। মমতা বালা  ঠাকুরের এই আন্দোলন শুরু হওয়ায় ঠাকুর বাড়ির অন্দরের দ্বন্দ্ব আবার প্রাকাশ্যে আসতে চলেছে ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...