এবার কি উত্তর প্রদেশে এন আর সি চালু হচ্ছে ? বহিরাগতদের চিহ্নিত করতে নির্দেশ দেওয়া হল পুলিশকে

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ আসামের এন আর সি নিয়ে এখনও আতঙ্কে ভুগছেন কোটি কোটি ভারতবাসী । বিশেষ করে পশ্চিম বঙ্গের মানুষ বেশী করে চিন্তিত । প্রতিবেশি দেশ বাংলাদেশ আর পশ্চিমবঙ্গের জনগণের মধ্যে দেশের পার্থক্য ছাড়া বেশী কিছু পার্থক্য নজরে পড়ে না । কারন ভাষার দিক থেকে হোক বা আত্মীয় স্বজনের দিক থেকে, মোটামুটি অধিকাংশ মানুষের সাথে এক দেশের সাথে অন্য দেশের মিল আছে । এক এক জন নেতা এন আর সি নিয়ে হুমকি দিচ্ছেন আর আতকংকে প্রহর গুনছে রাজ্য বাসী । যত তাড়াতাড়ি সম্ভব  রাজ্যে বাংলাদেশী ও অন্যান্য বিদেশিদের চিহ্নিত করতে হবে। তারপর তাদের তাড়িয়ে দিতে হবে দেশ থেকে। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ডিজি এমনই নির্দেশ পাঠিয়েছেন বিভিন্ন জেলার পুলিশকর্তাদের উদ্দেশে ।

উত্তর প্রদেশের ডি জি জানিয়েছেন,  রাজ্যের নিরাপত্তার স্বার্থে বহিরাগত তথা বিদেশীদের বিতারিত করতে হবে । উত্তরপ্রদেশ পুলিশ জানিয়েছে, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বিদেশিদের চিহ্নিত করে তাদের দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। কিভাবে এই বাছাই কাজ করা হবে সেটি তদারক করবেন উচ্চপদস্থ অফিসাররা । রাজনৈতিক মহল মনে করছে, এইভাবে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যেও কার্যত শুরু হয়ে গেল এন আর সি ।

বেশী দিন হয় নি, অসমে এন আর সির জন্য প্রায় ১৯ ল ক্ষ মানুষ নিজেদের নাগরিকত্ব প্রমান করতে ব্যর্থ হয়েছেন এবং নাগরিকপঞ্জি থেকে তাদের নাম বাদ গেছে । আগামী দিনে তাদের কপালে কি আছে সেটি কেউ জোর গলায় বলতে পারছে না । এমন সময়,  উত্তরপ্রদেশ পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, বিভিন্ন বস্তি এলাকা, বড় স্টেশন ও দূরপাল্লার বাস গুমটির কাছে তল্লাশি চালাতে হবে । তল্লাশি চালানর সময় সন্দেহ ভাজন  কাউকে দেখলে তাকে প্রয়োজনীয় নথিপত্র দেখানর কথা বলতে হবে । এছাড়া সেখানে পুলিশ  প্রশাসনকে  বলা হয়েছে, সরকারি কর্মচারীরা কেউ  বাইরের লোকের  জাল নথিপত্র তৈরি করে দিচ্ছে কিনা সেদিকে নজর রাখতে । এই প্রক্রিয়া চলা কালে,   যাদের বাংলাদেশ ও অন্যান্য বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিক হিসাবে চিহ্নিত করা হবে, তাদের আঙুলের ছাপ নেওয়া হবে ।

উত্তরপ্রদেশের পুলিশ ইতিমধ্যে অনেক নির্মাণকারী সংস্থাকে তাদের অধীনে ভিন রাজ্য থেকে যেসব ঠিকা শ্রমিক কাজ করছে বা করতে আসবে সেই সব প্রত্যেক শ্রমিকের পরিচয়পত্র পরীক্ষা করতে নির্দেশ দিয়েছে । অসমে জাতীয় নাগরিক পঞ্জী চালু হবার পর উত্তর প্রদেশের মুখ্য মন্ত্রী  যোগী আদিত্যনাথ অসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জির প্রশংসা করেছিলেন। সেই সঙ্গে বলেছিলেন, যদি প্রয়োজন হয়, উত্তরপ্রদেশেও এন আর সি চালু করবেন । এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, দেশের নিরাপত্তার জন্য সব জায়গায় অসমের মতো এন আর সি হওয়া প্রয়োজন । তবে,  অসমের ক্ষেত্রে,  বলা হয়েছিল, ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চের আগে যারা অসমে থাকতেন, তাঁদের ভারতের নাগরিক হিসাবে গণ্য করা হবে। উত্তরপ্রদেশের ক্ষেত্রে তেমন নির্দিষ্ট কোনও নিয়ম বা দিন ঘোষণা করা হয়নি ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...