সামরিক বরাদ্দ বাড়িয়ে পঞ্চম স্থানে উঠে এল ভারত

0

সীমান্ত নিয়ে পাকিস্থানের সাথে ঝামেলা তো চলছেই সেই জন্মলগ্ন থেকে, তাছাড়া অপর এক শক্তিশালী দেশ, এবং পাকিস্থানের বন্ধু চীনও সীমান্তে কম বিড়ম্বনায় ফেলেনা ভারতকে। এসব কথা মাথায় রেখে ভারত ক্রমশ তাদের সামরিক বরাদ্দ বাড়িয়ে চলেছে। পরিসংখ্যান বলছে সামরিক খরচে ভারত এই মুহূর্তে সারা পৃথিবীর মধ্যে পঞ্চম স্থানে অবস্থান করছে।

আসুন জেনে নেওয়া যাক কোন কোন অস্ত্র গুলি ভারতের সাথে চীন ও পাকের সাথে যুদ্ধ বাঁধলে কোন চেঞ্জারের ভূমিকা নেবে?

মিডিয়াম রেঞ্জ সারফেস-টু-এয়ার মিসাইল  M-R-SAM নামে এই S-T-A মিসাইল কেনার জন্য ইস্রায়েলের সাথে ২০০ কোটি ডলারের চুক্তি করেছে ভারত। এটি ভারতীয় সেনাবাহিনী ব্যবহার করবে। ভারতের ৪০ টি ফায়ারির পয়েন্টে ৭০ কিলোমিটার রেঞ্জে আসবে ২০০ টি এই মিসাইল।

আলট্রালাইট কামানঃ

১৪৫ টি আলট্রালাইট কেনার জন্য আমেরিকার সাথে ৫০০ কোটি ডলারের চুক্তি হয়েছে ভারতের। ঐটি ১৫৫ মিলিমিটারের ৩৯ ক্যালিবারের কামান। তবে ১৪৫ টি কামানের মধ্যে ২৫ টি কামানের আমদানি করা হবে। বাকি ১২০ টি কামান আমেরিকান কোম্পানি  BAE এর সাথে জোট বেঁধে Mahindra Defence ভারতের মাটিতে তৈরি করবে।

রাফাল ফাইটারঃ 

rafale-fighter

বিতর্কিত রাফাল চুক্তি। ৩৬ টি রাফায়েল বিমান কিনতে ৯০০ কোটি ডলারের চুক্তি করেছে ভারত। ২০১৯ এ ভারতে আসার কথা প্রথম রাফায়েল বিমান। বিমানটির বিশেষত্ব হল এর ত্রি কোণাকৃতির জন্য। শব্দের দ্বিতল গতিতে চলতে পারে এই বিমান।

১৫৫ মিলিমিটার/ ৫২ ক্যালিবার ট্রাকড গানঃ 

দক্ষিণ কোরিয়ার সাথে চুক্তি হয়েছে এই বিশেষ আর্টিলারি গান-এর জন্য। বিশেষত্ব হল এই অস্ত্র স্বয়ংক্রিয় ভাবে বলতে পারে।

S-400 ট্রিম্ফঃ 

S-400-triumf

এটি এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম। রাশিয়ার সাথে ৫০০ কোটি ডলারের চুক্তি হয়েছে। লং রেঞ্জের এই বিশেষ অস্ত্রে শত্রুপক্ষের দিক থেকে আসা বিমান নিমেষে ধ্বংস করে ফেলার বিশেষ ক্ষমতা আছে।

 

 

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...