সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে অবিশ্বাস্য চমক

ভারতে লোকসভা নির্বাচন শেষে গত ২৩ তারিখ ফল বেরনোর পর ভারতের রাজনৈতিক ইতিহাসে এসেছে অনেক নয়া চমক। নির্বাচনের আগে নির্বাচনী প্রচার ছিল যেন যুদ্ধক্ষেত্র। পক্ষ ও বিরোধী পক্ষের বাকযুদ্ধে কার্যত দিশেহারা হয়ে গেছিল সাধারণ মানুষ। এই নির্বাচনী প্রচারের বাকযুদ্ধে সবচেয়ে ভয়ংকর রূপ নিয়েছিল বিজেপি এবং তৃণমূলের দ্বন্ধে।

তবে এত যুদ্ধের পরও সাধারণ মানুষ দেখিয়ে দিলো তাদের ক্ষমতা। বিপুল ভোটে জিতে ২য় বারের মত প্রধানমন্ত্রী হবার পথে এগোলেন নরেন্দ্র মোদী।২৩ শে মে তাঁর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান। সেই অনুষ্ঠানকে ঘিরেও রয়েছে টান টান উত্তেজনা। কোন কোন দেশীয় এবং রাষ্ট্রনেতা অংশগ্রহণ করবেন এই অনুষ্ঠানে তা নিয়ে শুরু হয়ে গেছে জল্পনা। সবচেয়ে বেশী কৌতূহল পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে নিয়ে। কারণ আমরা সবাই দেখেছি এই দুই রাষ্ট্র নেতার বাগযুদ্ধ এবং দুই দলের তুমুল দ্বন্ধ। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সামিল হতে চলেছেন ২৩ শে মে প্রধানমন্ত্রীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে।

এদিকে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের নির্বাচিত লোকসভা সদস্যদের প্রথম বৈঠকে মোদীজি বলেন, যে নির্বাচনী প্রচারে কে কি বলেছেন তা মনে না রেখে সবাইকে নিয়ে উন্নয়নের পথে হাঁটতে চান তিনি। এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও সৌজন্যতা দেখিয়ে দিল্লী যাবার কথা ঘোষণা করেন।প্রসঙ্গত শপথ অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র মঙ্গলবার দিল্লিতে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের রেসিডেন্ট কমিশনারের কাছে পৌঁছয়।মনে করা হচ্ছে এটি শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের নতুন চমক।

মন্তব্য
Loading...