সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

চিন্তা বাড়িয়ে করোনা সংক্রমণের নিরিখে ভারত ব্রাজিলকে টপকে দু’নম্বরে

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ ফের দৈনিক করোনা সংক্রমণে রেকর্ড করল ভারত । কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা  ৯০ হাজারের গণ্ডি পার হল । একই সাথে চিন্তা বাড়িয়ে মোট আক্রান্তের নিরিখে আরও এক ধাপ এগিয়ে বর্তমানে ভারতের স্থান বিশ্বে দু’নম্বরে ।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্দ্রক থেকে প্রচার করা বুলেটিন থেকে জানা যাচ্ছে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছে   ৯০ হাজার ৬৩২ জন, যা এখনও পর্যন্ত রেকর্ড ।এর সাথে সাথে রবিবারই আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘ওয়ার্ল্ডোমিটার্স’-এর সমীক্ষায়  ভারতে সংক্রমিতের সংখ্যা ৪২ লক্ষ পেরিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলকে পিছনে ফেলে এগিয়ে এল ভারত ।

এই মুহূর্তে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা  দাঁড়িয়েছে ৪১ লক্ষ ১৩ হাজার ৮১১ জন। আশঙ্কা বাড়িয়ে ভারতের কয়েকটি জায়গায় করোনার সেকেন্ড ওয়েভ অর্থাৎ দ্বিতীয় বারের মত করোনা সংক্রমণ শুরু হয়েছে । অনেক জায়গা থেকে একবার করোনা আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হবার পর ফের সংক্রামিত হবার ঘটনা ঘটছে । গত কাল বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতাল জানাল, সুস্থ হওয়ার পরেও ফের করোনার সংক্রমণ ধরা পড়েছে এক রোগিণীর শরীরে।

এদিকে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে আনলক ৪.০ । করোনায় আক্রান্ত হবার শঙ্কা দূরে সরিয়ে ফের নতুন করে ছন্দে ফিরতে চাইছে দেশ । কিন্তু যেভাবে দৈনিক সংক্রমণের হার বেড়ে চলেছে তাতে কপালে চিন্তার ভাঁজ আরও চওড়া হচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের । বিভিন্ন জায়গায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ভর্তি আছেন ৮ লক্ষ ৬২ হাজার ৩২০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে আরও ১০৬৫ জনের। মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭০,৬২৬। তবে আশার আলো একটাই যে,  সুস্থতার হার পৌঁছেছে ৭৭.৩২ শতাংশে।

স্বাস্থ্য দপ্তরের ধারনা, দৈনিক পরীক্ষার সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার ফলেই সংক্রমণের সংখ্যাও লাফিয়ে বাড়ছে । আবার একাংশের ধারনা তাহলে এতদিন স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যানে গলদ ছিল ! এদিকে বিশেষজ্ঞরা ধারনা করছেন, দেশে যেভাবে করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে, তাতে একাধিক শহরে আনলক ৪.০ পর্যায়ে বিশেষ ট্রেন বাড়ানোর সাথে সাথে মেট্রো ও লোকাল ট্রেন চালু করার কথা ভাবা হচ্ছে, তাতে পরিস্থিতি আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে ।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি, মহারাষ্ট্র, গুজরাত, ঝাড়খণ্ড ও পুদুচেরির মোট ৩৫টি জেলা থেকে বেশি সংখ্যায় করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর খবর আসছে। তাই কন্টেনমেন্ট ব্যবস্থা জোরদার করার পাশাপাশি পরীক্ষা বাড়াতেও বলা হয়েছে, যাতে ওই রাজ্যগুলিতে সংক্রমণের হার পাঁচ শতাংশের নীচে নেমে আসে। তালিকায় থাকা জেলাগুলির মধ্যে রাজ্যের তিনটি জেলা কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা রয়েছে ।

এদিকে করোনা ভ্যাক্সিন নিয়ে বেশ কিছুটা এগিয়েছে ভারত ।  ভারত বায়োটেক-সূত্রে জানা গিয়েছে, ‘কোভ্যাক্সিন’ (Covaxin) টিকার দ্বিতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হতে পারে । এ ছাড়া অক্সফোর্ডের ‘কোভিশিল্ড’ টিকার তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা চালাচ্ছে সিরাম ইনস্টিটিউট । জাইডাস ক্যাডিলার টিকা ‘জাইকোভ-ডি’-র পরীক্ষাও দ্বিতীয় পর্যায়ে রয়েছে।

মন্তব্য
Loading...