আবহাওয়া খবর; পুজোর পরেও রেহাই নেই বৃষ্টির হাত থেকে, আজও বৃষ্টির সম্ভবনা প্রবল

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ অবশেষে মা বিদায় নিলেন । আবার অপেক্ষার প্রহর গুনতে হবে গোটা একটা বছর । কিন্তু বৃষ্টির বিদায় বেলা যে এখনও শেষ হয়নি সেটা ভাল করেই মালুম হচ্ছে বঙ্গবাসীর ।  বাঙালিকে স্বস্তি দিয়ে পুজোর চারটে দিন খুব বেশী উৎপাত না করে মোটামুটি চুপচাপই ছিল বর্ষা । দশমীর বিসর্জনের পরেই  আবার তৈরি হচ্ছে নতুন উদ্যমে – এমনটাই জানাল আলিপুর আবহাওয়া অফিস । 

একটানা বৃষ্টিতে একাদশীর ভোররাত থেকেই আকাশের কল খুলে দিয়েছে, জলের মধ্যে নাকানি চোবানি অবস্থা কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গের । গতকাল থেকেই পু জোর আমেজ কাটিয়ে নতুন করে কাজে যোগ দিচ্ছে আপামর বাঙ্গালী । কিন্তু আজ বৃহস্পতিবার সকালেও আকাশের মুখ ভার। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, উত্তরবঙ্গ থেকে ওড়িশা পর্যন্ত একটা লম্বা নিম্নচাপ অক্ষরেখা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ফলে, বৃষ্টি যে এখনই বিদায় জানাচ্ছে না, সেটা পরিষ্কার । আজও দিনভর ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতা সহ অন্যান্য জেলায় । 

একই সাথে, বর্ষা ও নিম্নচাপ অক্ষরেখার জোড়া ফলায় বিধ্বস্ত কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গ । গোটা কলকাতা জুড়ে বৃষ্টি হয়েছে । উত্তরের কলেজ স্ট্রিট, ঠনঠনিয়া, মুক্তারামবাবু স্ট্রিট, চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউ, মহাত্মা গাঁধী রোড, ধর্মতলা, স্ট্র্যান্ড রোড-সহ বিস্তীর্ণ অংশে জল জমে যানজট তৈরি হয়। নাকাল হতে হয় পথচারীদের। দক্ষিণ কলকাতার সাদার্ন অ্যাভিনিউয়ের একাংশ, আলিপুর বডিগার্ড লাইন্স, চারুচন্দ্র প্লেস (ইস্ট), ভবানীপুরের জাস্টিস চন্দ্রমাধব রোড সংলগ্ন কিছু এলাকা এবং দক্ষিণ শহরতলির মোমিনপুর ও জোকা এলাকাতেও জল জমে যায় । পৌরসভা থেকে যথাযথ ব্যবস্থা নিলেও সেটা যে যথেষ্ট নয়, সে কথা স্বীকার করে নিচ্ছে পৌর কর্মীরা ।

এখনও নিশ্চিত করে জানাতে পারেননি আবহবিদরা কবে নাগাদ বৃষ্টি বিদায় নেবে ।  তবে একেবারে  নিরাশ করেনি আবহাওয়া বিদরা । তারা জানিয়েছেন,  উত্তর-পশ্চিম ভারতের একাংশ থেকে বর্ষা বিদায় নিচ্ছে ধীরে ধীরে । বাংলাতে এখনও তার দাপট রয়েছে । কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া এবং পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে গতকালও ভারী বৃষ্টি হয়েছে। টানা বৃষ্টির প্রভাব পড়েছে উপকূলের জেলাগুলিতেও।

সবচেয়ে বড় কথা,   ওড়িশা থেকে উত্তরবঙ্গ পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে একটি নিম্নচাপ বলয়। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের উপরেই মূলত এর অবস্থান। এর জেরে বঙ্গোপসাগরে তৈরি হয়েছে ঘূর্ণাবর্ত। এ ছাড়া ওড়িশা ও সংলগ্ন এলাকা এবং উত্তরবঙ্গে জোড়া ঘূর্ণাবর্তে জেরে প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকছে রাজ্যে । আর এই সবের জেরেই একাদশীর সকাল থেকেই ভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে কলকাতা ও তার সন্নিহিত এলাকায়। বৃষ্টির দাপট দেখা যাবে শুক্রবার পর্যন্ত। সপ্তাহ শেষে বৃষ্টি কমার সম্ভাবনা আছে। তবে ভারী বৃষ্টি না হলেও বিক্ষিপ্ত ও মাঝারি বৃষ্টির স ম্ভবনা প্রবল ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য