সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

জানেন কি ভারতেই এমন জায়গা আছে, যেখানে বউ ভাড়া পাওয়া যায় !

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃনারী স্বাধীনতা, নারী ক্ষমতায়ন, নারী পণ্যায়ন নিয়ে যখন সারা বিশ্ব জুড়ে চর্চা চলছে, প্রতি দিন নতুন করে সংজ্ঞায়িত হচ্ছে নারীর সম্মান, সেই ২০২০ সালের আধুনিক বিশ্বে এখনও চালু বিয়ে না করেও বউ ভাড়া দেবার প্রথা । হ্যাঁ, অবাক হবার কিছুই নেই, ভারতের মধ্যপ্রদেশের শিবপুরী জেলাতে এখনও কোন ঝামেলা ছাড়াই ভাড়া নেওয়া যায় বউ ।

ভারতের মধ্যপ্রদেশের শিবপুরী জেলার গোয়ালিয়র ডিভিশনে এখনও বউ ভাড়া দেবার প্রথা চালু আছে । ভাবতে আবাক লাগে, ভারতবর্ষের মত একটা দেশে যেখানে বেশ কয়েকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মহিলা, এমনকি রাষ্ট্রপতি হিসাবেও মহিলা নির্বাচিত হতে পারেন, সেখানে এখনও মধ্যযুগীয় এই বর্বর প্রথা চলে আসছে । অথচ এখনও মধ্যপ্রদেশের শিবপুরী জেলার গোয়ালিয়র ডিভিশনের মানুষ এই প্রথাকে স্বাভাবিকভাবেই মেনে নিয়েছে, এবং এ নিয়ে আলাদা কোন তাপ উত্তাপ নেই তাদের মধ্যে ।

মধ্যপ্রদেশের শিবপুরীর উত্তর পশ্চিম এলাকায় ‘ধাদিচা’ নামে পরিচিত জেলাতে বউ ভাড়া দেওয়া বা নেওয়া প্রথা । এই প্রথা অনুযায়ী যে কেউ একজন মহিলাকে অর্থের বিনিময়ে ভাড়া নিয়ে দাম্পত্য জীবন পালন করতে পারেন অনায়াসে । সোজা ভাষায় বলা ভাল, টাকার বিনিময়ে চুক্তি ভিত্তিক নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মেটাতে পারেন নিজেদের যৌন ইচ্ছা । আর এই প্রথায়  কোনও ঝামেলা ছাড়াই আইনসম্মত করতে স্ট্যাম্প পেপারে চুক্তি করে বউ ভাড়া নেওয়া হয় ।

এই বিষয়ে ভারতীয় সংবিধানে যে আইন রয়েছে, সেই আইন বলছে, কোনও মহিলাকে ভাড়া করে স্ত্রী হিসেবে নিজের কাছে রাখলে তা মহিলা কেনা-বেচারই সমতুল্য। কিন্তু কোথায় আইন ! মাত্র দশ টাকার স্ট্যাম্প পেপারে সই হয়ে যায় চুক্তি। মাস বা বছরের হিসেবে ভাড়া দেওয়া হয় মহিলাদের। চুক্তি শেষ হয়ে গেলে তা ফের নবীকরণ করা যায়। বেশি পয়সা দিলে বেশি দিনের জন্য ভোগ করা যায় ভাড়া করা বৌকে। কারও ইচ্ছে না করলে  চুক্তি নবীকরণ নাও করাতে পারেন ।

সূত্রের খবর, রীতিমতো খোলা বাজারে দাঁড় করিয়ে নিলাম হয় মহিলাদের। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে এই নিন্দনীয় প্রথা। যা নিয়ে কোনও মাথাব্যথাই নেই সমাজের। প্রশাসনও নির্বাক কোনও এক অজানা কারণে। ধনীদের ভাড়ায় বউ নিয়ে থাকার ক্ষমতা রয়েছে, তাই তারা সেটা করে থাকে। এটা নিয়ে তো কিছু বলার নেই! তবে জানা যায়, এই কেনাবেচার বড় বখরা মেলে পুলিশেরও। তাই এ দিকটা একটু এড়িয়ে চলতেই ভালবাসে তারা।

কুখ্যাত আইএস জঙ্গিরা মহিলাদের অপহরণ করে যৌনদাসী হিসাবে কেনা বেচা করে । কিন্তু বিশ্বের কুখ্যাত জঙ্গি সংগঠন আইএস-এর মতোই একই রকম নারী-কারবার যে ভারতের বুকেও দীর্ঘ দিন ধরে জমজমাট ভাবে চলছে, তা নিয়ে তেমন হেলদোল নেই কারও! মধ্যপ্রদেশের শিবপুরী এলাকার এই বিষয়টি প্রথম প্রকাশ্যে আসে ২০১৭ সালে। বিয়ে বাড়িতে গিয়ে নিজের স্ত্রীকে এক ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করে দিয়েছিল ইন্দোরের এক ব্যক্তি। ৩০ হাজার টাকায় কেনা সেই মহিলাকে অসংখ্য বার ধর্ষণের পরে ওই ব্যবসায়ী শিবপুরীতে বিক্রি করে দেয়। সেখান থেকে পালিয়ে এসে সেই তরুণী পুলিশকে জানায় সব কিছু। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ওই মহিলার স্বামীকে গ্রেফতারও করা হয়।তবে ওই পর্যন্তই সার। আর কোনও ধরপাকড় হয়নি এই ঘটনায়। বদলায়নি প্রথাও। এখনও একই ভাবে ভাড়া দেওয়া হচ্ছে বউ ।

মন্তব্য
Loading...