সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রী মমতার “অন্য জায়গা থেকে ইনকাম” প্রসঙ্গে বিরোধীদের শুরু হল সমালোচনা

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ ২১ শে জুলাই মুখ্যমন্ত্রী মমতাবন্দ্যোপাধ্যায়ের  ভার্চুয়াল সভা নিয়ে এবার শুরু হল কাঁটাছেঁড়া, চুলচেরা বিশ্লেষণ । গতকালকের ভার্চুয়াল সভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতার “অন্য জায়গা থেকে ইনকাম” প্রসঙ্গ নিয়ে বিরোধী দলগুলি থেকে উঠে আসতে শুরু করেছে সমালোচনা এবং নানান প্রশ্ন ।

২১ শে জুলাই এবছর করোনা মহামারীর কারনে ভার্চুয়ালি পালন করতে বাধ্য হয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল । সেই ভার্চুয়াল সভায় মুখ্যমন্ত্রী বক্তব্য রাখতে গিয়ে একজায়গায় বলেছেন, “আমি ইনকাম করব অন্য জায়গা থেকে, কিন্তু তা বাটোয়ারা করে দেব গরিবদের মধ্যে। মনে রাখবেন, একটা গাছে অনেক ফল ফলে, কিন্তু কেউ সেটা একা খায় না। সেই ফল অনেকে মিলে খায়।” মমতা ব্যানার্জির এই কথার পরেই বিরোধী দল থেকে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে “অন্য জায়গা থেকে ইনকাম” বলতে কি বঝাতে চাইছেন তিনি ?

২১ জুলাই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের ভার্চুয়াল সভায় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা রাজ্যেবাসীর উদ্দেশ্যে বেশ কিছু বড় ঘোষণা করেছেন ।  এদিন রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে  তিনি বলেন, “আমি আগেই বলেছি ২১ জুন পর্যন্ত বাংলার গরিবরা বিনামূল্যে রেশনের চাল গম পাবেন। আজ বলছি, আমাদের সরকার থাকলে শুধু ২১  নয়, সারাজীবন ফ্রিতে রেশন পাবেন, শিক্ষা পাবেন, স্বাস্থ্য পরিষেবা পাবেন।” এর পরেই তিনি অন্য জায়গা থেকে ইনকামের প্রসঙ্গ আনেন ।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্য ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। বিরোধীদের কটাক্ষ, ‘অন্য জায়গা থেকে ইনকাম’ বলতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাটমানির কথা বলছেন। কেউ কেউ বলছেন, সাধারণ মানুষের ওপর অতিরিক্ত কর চাপিয়ে আয় বাড়াতে চাইছেন তিনি। কংগ্রেস বিধায়ক মিল্টন রশিদ বলেছেন, “অন্য কোথা থেকে সরকার আয় করবে তার জবাব বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রীকে দিতে হবে।”

এদিকে মুখ্যমন্ত্রীর রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে বড় ঘোষণা নিয়েও কটাক্ষ করা হয়েছে । সারাজীবন ফ্রি-তে রেশন দেওয়ার প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ঘোষ বলেন “রেশনে বিনামূল্যে চাল দেওয়া যায় তো এতদিন কেন দেননি উনি? পশ্চিমবঙ্গের বাইরে ভারতবর্ষে কোথায় ২ টাকা কিলো দরে চাল আর পোকায় ধরা গম খেতে হয়?” পাশাপাশি দিলীপ ঘোষ সমালোচনা করে আরও বলেছেন,  “আপনার কাছে চাকরি নেই, রেশন নেই। যে রেশনটা পাঠিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী সেটাই তো পৌঁছে দিতে পারেননি। রাস্তায় লুঠ হয়ে গিয়েছে।”

মন্তব্য
Loading...