সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

করোনা মোকাবিলায় মা দুর্গা রূপে অবতীর্ণ হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

করোনা মোকাবিলায় একের পর এক দুর্দান্ত পদক্ষেপ নিয়ে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। Chief Minister Mamata Banerjee is taking great steps one after another to fight Corona.

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ করোনা মোকাবিলায় একেবারে নতুন নজির গড়ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনা মোকাবিলায় রাজ্যের সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার দিকে যেমন তিনি নজর রেখে চলেছেন তেমনই রাজ্যের স্বাস্থ্য কর্মী, নার্স, চিকিৎসক, জরুরি পরিষেবার সাথে যুক্ত মানুষদের মনোবল বাড়াতে এবং তাদের নিরাপত্তার জন্য একের পর এক দৃষ্টান্ত মূলক সিদ্ধান্ত নিয়ে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সমস্ত ধর্ম, রাজনীতির উপরে উঠে তিনি যে শুধু মানুষের কথাই ভাবছেন তা স্পষ্ট হয়ে গেলো সোমবার রাজ্যের জেলা শাসক এবং পুলিশ সুপারদের সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেওয়া তাঁর বক্তৃতা থেকে। তিনি বলেন,” কেউ যেন এই রাজ্যে অনাহারে না থাকে। কোনও কার্পণ্য করবেন না। রেশন কার্ড না থাকলেও খাবার দেবেন সবাইকে। মানুষ বাঁচলে পয়সা আসবে।”

এদিন ভিডিও কনফারেন্সে তিনি বলেন করোনা মোকাবিলায় রাজ্যের বেসরকারি পরিকাঠামো তিনি ব্যবহার করবেন। সাথে ব্যবহার করবেন বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্য কর্মীদের। এছাড়াও তিনি ডাক্তার এবং স্বাস্থ্য কর্মীদের বীমার পরিমাণ ৫ লাখ থেকে বাড়িয়ে ১০ লাখ করে দেন এবং এই আওত্তায় আনেন নমুনা সংগ্রহকারী ক্যুরিয়ার সার্ভিসের কর্মীদেরও।

কনফারেন্সে মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান যে, অর্ডার দেওয়া ৩০০ ভেন্টিলেটর ইতি মধ্যে তাঁর হাতে এসে পৌঁছয় এবং আরও ৩০০ এর অর্ডার দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও নবান্নে করা ভিডিও কনফারেন্সে তিনি বারবার রাজ্যের গরীব, ভবঘুরে, এবং বৃদ্ধদের পাশে এসে দাঁড়ানোর কথা বলেন এবং ভিন্ন রাজ্য থেকে আসা শ্রমিকদের খাদ্য এবং বাসস্থানের কথা নিশ্চিত করেন।

চাষিদের কাছ থেকে সব্জি বাজারে পৌঁছনোর উপায় নিয়েও আলোচনা করেন। এছাড়াও তিনি জেলাভিত্তিক কয়ারেন্টাইন সেন্টার হিসেবে বিভিন্ন বিয়েবাড়ি, কমিউনিটি হল, সরকারি এবং বেসরকারি বাসভবনগুলিকে চিনহিত করে দ্রুত কাজ করার নির্দেশ দেন।

এছাড়াও কেউ এইসময় ভলেন্টিয়ার হতে চাইলে তাদের জন্য হেল্পলাইন নম্বরও দিয়ে দেন, (০৩৩-২৩৪১২৬০০)। এবং সমস্ত বিষয় নিয়ে তিনি বলেন,” আগামী ২ সপ্তাহ খুব জরুরি। এই সময়টা এমারজেন্সি। আমাদের ২৪x৭ কাজ করতে হবে।” সব মিলিয়ে করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রী যে বর্তমানে দেবী দুর্গা রূপে উত্তীর্ণ হয়েছেন তা বলাই বাহুল্য।

মন্তব্য
Loading...