সেন্টমার্টিন দ্বীপে পর্যটকদের সাথে বাংলাদেশের জনপ্রীয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্ক: সেন্টমার্টিন দ্বীপে পর্যটকদের সাথে বাংলাদেশের জনপ্রীয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। ঘূর্ণিঝর বুলবুলে আটকা পড়েছেন অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী সহ অনেক শিল্পী কলাকুশলীরা। জানা যায় মেজবাউর রহমানের ছবি হাওয়ার অভিনয়ে স্যুটিং চলছিল সেন্টমার্টিন দ্বীপে। এরই মধ্যে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝর বুলবুলের কারণে অন্যান্য পর্যটকদের সাথে আটকা পড়েছে এ ছবির কলাকুশলীরা। তারা প্রশাসনের নির্দেশমত হোটেলে আছেন এবং পর্যাপ্ত খাবার রয়েছে। সেন্ট মার্টিনের রাস্তাঘাটও জনমানব শূন্য। সবাই নিরাপদ স্থানে চলে গেছে।

বিভিন্ন মিডিয়া চঞ্চল চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান ঢাকায় তার পরিবারের সদস্যদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ হচ্ছে। তার সকল দর্শক ভক্তরা তার খোজ নিচ্ছেন। নিরাপদে থাকলেও চঞ্চল চৌধুরী যে প্রায় বন্দী তা তার ফেসবুকের থেকে জানা যাচ্ছে। নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সবাই নিরাপদে থাকুন। আমরা “হাওয়া” টিম সেন্টমার্টিনে নিরাপদে আছি।’‘সাগরে ঘূর্ণিঝড়, আমরা সবাই হোটেলে বন্দী। বাইরে বের হওয়া নিষেধ। সাগরের তীরে কেউ যেতে পারবে না। একটু পরপর প্রশাসন থেকে মাইকিং করা হচ্ছে।’

জানাযায় মেজবাউর রহমান সুমনের হাওয়া ছবিটি তিনি আগেই বলেছেন, ‘এটা সমুদ্রতীরবর্তী মানুষের গল্প না। একেবারে সমুদ্রের জলের সঙ্গে মিশে যাওয়া জেলেদের গল্প। জলের গল্প। মাছ ধরার ট্রলারকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে কাহিনি। গভীর সমুদ্রে ১০ থেকে ১৫ দিনের জন্য মাছ ধরতে যান জেলেরা। সেখানকার অভিজ্ঞতা এটি। আমাদের এ অঞ্চলে জলকেন্দ্রিক যে মিথোলজি আছে, তার একটা আধুনিক উপস্থাপনা বলতে পারেন।’

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য