বুথ ফেরত সমীক্ষা; মহারাষ্ট্রে ফুটতে চলেছে পদ্ম

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ সারা দেশ জুড়ে চলছে মোদী ঝড় । সামনে যাকে পাচ্ছে তাকেই খড়কুটোর মত উড়িয়ে নিয়ে চলেছে । সাথে আছে সুযোগ্য সেনাপতি অমিত শাহ ।মোদী-অমিতের যুগলবন্ধীকে এই মুহূর্তে থামাবার মত বিকল্প শক্তি মনে হয় নেই । মহারাষ্ট্রের বুথ ফেরত সমীক্ষা যেন সেরকমই ইঙ্গিত দিচ্ছে ।

লোকসভা ভোটের পরেই রাজনীতিতে অনীহা প্রকাশ করেছিলেন সনিয়া পুত্র রাহুল । এবার মহারাষ্ট্রে বিধান সভা নির্বাচনের ভোট প্রচারেই দেখা গিয়েছে কংগ্রেস যেন লড়াইয়েই নেই ।  বর্ষীয়ান শরদ পওয়ারের সাথে যৌথ ভাবে কোন  জনসভায় বক্তৃতা দিতে দেখা যায়নি রাহুল গান্ধী বা সনিয়া গান্ধীকে ।   অথচ এই বিধান সভায় নাকি তাঁরা জোট করেছেন । দেখা যাচ্ছে ভোটের আগেই বিরোধী শিবিরের অবস্থা অনেকটা ছন্ন ছাড়া ছিল । সোমবার মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণের পর দেখা গেল মোটামুটি সকল  বুথ ফেরত সমীক্ষা প্রত্যাশিত ভাবেই বিজেপির বিপুল জয়ের ইঙ্গিত দিচ্ছে।

এবার দেখা যাক বুথ ফেরত সমীক্ষা কি বলছে ?  মহারাষ্ট্র বিধানসভায় মোট ২৮৮ টি আসন রয়েছে।Times Now এর বুথ ফেরত সমীক্ষা জানাচ্ছে, মহারাষ্ট্রে বিজেপি-শিবসেনা জোট পেতে পারে দুই-তৃতীয়াংশেরও বেশি আসন। তারা ২৩০ টি আসনে জিততে পারে ।অপর দিকে,  কংগ্রেস ও NCP-র  জোট পেতে পারে মাত্র ৪৮ টি আসন ।

যদিও ইন্ডিয়া টুডে অ্যাক্সিস–এর বুথ ফেরত সমীক্ষা জানিয়েছে,  বিজেপি ও শিবসেনা ১৬৪-১৯৪ টি আসনে জিততে পারে। অপরদিকে,  কংগ্রেস ও NCP-র জোট জিততে পারে ৭২ থেকে ৯০টি আসন । উল্লেখ্য গত লোকসভা নির্বাচনে  অ্যাক্সিস-ইন্ডিয়া টুডের যে  সমীক্ষা হয়েছিল, সেটি  প্রকৃত ফলাফলের সঙ্গে মোটামুটিভাবে মিলে গিয়েছিল । অন্যদের থেকে অন্তত সমীক্ষার ক্ষেত্রে,   অ্যাক্সিস তাদের পূর্বানুমানের ক্ষেত্রে সাফল্যের ধারাবাহিকতাও বজায় রাখছে ।

রিপাবলিক টিভিও বুথ ফেরত সমীক্ষা করেছে। তাদের হিসাবে দেবেন্দ্র ফড়নবীশের নেতৃত্বে গেরুয়া শিবির জিততে পারে ২২৩টি আসন। অন্যদিকে কংগ্রেস ও NCP-র জোট পেতে পারে ৫৪ টি আসন।

এ ছাড়াও এবিপি নিউজও বুথ ফেরত সমীক্ষা করেছে। তাদের হিসাবে বিজেপি-শিবসেনা জোট পেতে পারে ২০৪টি আসন। তুলনায় কংগ্রেস ও NCP-র জোট পেতে পারে ৬৯ টি আসন।

আবার CNN News 18 -র বুথ ফেরত সমীক্ষায় দেখা গেছে,   বিজেপি জোট ২৪৩ টি আসনে জিততে পারে ।

মহারাষ্ট্রে, এর আগে বিধান সভা ভোট হয়েছিল ২০১৪ সালে । সেবার  ৬৩ শতাংশ ভোট পড়েছিল । কিন্তু এবার  বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত ভোট পড়েছে মাত্র ৫২ শতাংশ ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.