সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

বিজেপির রাহুল সিনহার প্রতি ক্ষেপে বোম অনুব্রত ! হাতে পেলে একদিকের চুল কামিয়ে দেবেন !

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে মন্তব্য করায় এবার বিজেপির রাহুল সিনহার প্রতি ক্ষেপে গেলেন বীরভূম তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল । তৃণমূল নেতা এতটাই ক্ষেপেছেন যে, রীতিমত হুশিয়ারি দিয়ে জানালেন, “তুমি মমতা ব্যানার্জিকে যে কথা কাল বলেছো। আমরা মানবো না, দরকার হলে তোমার একদিক কার চুল কামিয়ে দেবো যদি কোনদিন পাই আমরা।”

বীরভূমের তারাপীঠে একটি দলীয় কর্মীসভা ছিল ।সেখানে কর্মী সম্মেলনে অনুব্রত ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দলের সহ সভাপতি অভিজিত্‍ সিনহা, জেলা সম্পাদক ত্রিদিব ভট্টাচার্য, সহ সভাপতি সৈয়দ সিরাজ জিম্মি, রামপুরহাট- ২ ব্লক সভাপতি সুকুমার মুখোপাধ্যায় এবং অঞ্চল সভাপতি ও বুথ সভাপতিরা। সেখানে  বক্তব্য রাখতে গিয়ে নিজস্ব ঢঙে হুঁশিয়ারি দেন অনুব্রত মণ্ডল। উল্লেখ্য, ২১ শে জুলাই উপলক্ষ্যে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্যকে কটাক্ষ করেছিলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। তিনি কালিঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর ভার্চুয়াল বক্তৃতার পর  বলেন, “২১ সালের পর ভাইপোকে নিয়ে কালিঘাটেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সভা করতে হবে। কালিঘাটেই শুরু, কালিঘাটেই শেষ।” এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে অনুব্রত ক্ষেপে গেছেন ।

এদিন দলীয় কর্মী সম্মেলনে অনুব্রত বক্তব্য রাখতে গিয়ে একেবারে চাঁছাছোলা ভাষায় আক্রমণ করেন বিজেপির রাহুল সিনহাকে ।  তার ভাষায়,  “কুচ্ছ কুচ্ছ কথা বলো, তোমার লজ্জা লাগেনা।তোমার ভাষা জ্ঞান নাই, তোমাদের ঘরে কি মা বোন নেই ? রাহুল সিনহা, তুমি মমতা ব্যানার্জিকে যে কথা বলেছো, এটা কি সমাজের চোখে বলা যায় ? তোমার কি বাড়িতে মা বোন নাই? আমারও তো বাড়িতে মা বোন আছে, আমরা তো ও কথা বলতে পারিনা, আমাদের রুচিতে আসে না।” শুধু তাই নয়, তিনি আরও বলেন  “আমি জানি তোমরা বিজেপি করো। তোমাদের রুচি জ্ঞান নাই। তোমরা মা বোনকে সম্মান দাও না। আমরা আমাদের মা বোনকে সম্মান দিই। আমরা এমন নোংরা কথা বলতে পারব না। রাহুল সিনহা, মানুষ কিন্তু তোমাকে ছাড়বে না।” 

অনুব্রত মণ্ডলের এমন চাঁছাছোলা ভাষায় একেবারে ‘মা-বোন’কে নিয়ে টানাটানি করে ‘হাতে পেলে মাথার অর্ধেক চুল কামিয়ে দেবার” হুমকির এখনও পর্যন্ত বিজেপির পক্ষ থেকে কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি । তবে অনুব্রত মণ্ডল এমনিতেই এই ধরনের কথা বলতে অভ্যস্ত ।  বক্তব্যের প্রেক্ষিতে এই মন্তব্য বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

মন্তব্য
Loading...