বাংলাদেশের প্রধান মন্ত্রী শিশুদের রোগমুক্ত রাখার গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ ভ্যাকসিন হিরো পুরস্কার পেলেন

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্ক:২০১৪ সাল থেকে বাংলাদেশকে পোলিও মুক্ত রাখার জন্য গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিনেশন অ্যান্ড ইমুনাইজেশন-জিএভিআই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভ্যাকসি হিরো পুরস্কারে সম্মান্নিত করেছে। গত রোববার জাতিসংঘ সদর দপ্তরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে জিএভিআই’র বোর্ড চেয়ার ড. গোজি ওকোনজো-ইউয়িয়ালার কাছ থেকে মর্যাদাপূর্ণ এই পুরস্কার গ্রহণ করেন। পুরস্কারটি গ্রহণ করেই প্রধানমন্ত্রী সেটি দেশবাসীকে উৎসর্গ করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ আয়োজনে বলেন, ভ্যাক্সিনেশনের জন্য বাংলাদেশের কঠোর পরিশ্রম আজ বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত। টিকাদান কর্মসূচি অব্যাহত রাখতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে সুস্থ ও নতুন প্রজন্ম দরকার। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহায়তা নিয়ে সার্বজনীন স্বাস্থ্য সেবা অধীনে ইমুনাইজেশনে সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

একই সাথে তিনি ২০৩০ সালের অনেক আগে ভ্যাকসিনের লক্ষ্যমাত্রায় পৌছান সম্ভব হবে বলে মনে করেন। প্রধানমন্ত্রী গ্লোবাল ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স এবং অন্যান্য অংশীদারদেরকে তাদের অব্যাহত সমর্থন ও অবদানের জন্য ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য খাতে রোহিঙ্গারা একটি ঝুকি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী রাখাইন থেকে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতে বিরাট ঝুঁকি তৈরি করেছে।২ দফা রুটিন ভ্যাক্সিনেশন ও ইমুনাইজেশনের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ব্যাপক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এছাড়া অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে ডিপথেরিয়া, কলেরা এবং এ ধরনের রোগ যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেই লক্ষ্যে সফলভাবে ভ্যাক্সিনেশন পরিচালনা করা হয় বলেও উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা।

রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার সবার মৌলিক স্বাস্থ্য ও পর্যাপ্ত পুষ্টি নিশ্চিত করতে সক্ষম হবে।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...