সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

মুসলিমদের পর এবার খ্রিস্টান, চীনে সমস্ত গির্জার ক্রুশ ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ কারাকাক্স লিস্ট’ নামে ফাঁস হওয়া গোপন নথিতে প্রকাশ পায় দাড়ি রাখা, হিজাব-বোরকা পরার মতো তুচ্ছ কারণে বন্দি হাজার-হাজার উইঘুর। যাকে, সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলার তকমা আঁটার চেষ্টা করছে সে দেশের কমিউনিস্ট সরকার।এবার চীনের সংখ্যা লঘু খ্রিষ্টানদের ধর্মীয় স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ চিনের । সরকারী নির্দেশের মাধ্যমে জানানো হয়েছে নির্দিষ্ট কয়েকটি প্রদেশের গীর্জার ক্রুশগুলিকে ভেঙে ফেলতে হবে। রাখা যাবে না যীশুর কোনও ছবি।

উইঘুরের সংখ্যালঘু মুসলিমদের উপর নেমে এসেছে চীন সরকারের কঠোর বিধিনিষেধ । সেখানে  হাজার হাজার সংখ্যালঘু মুসলিম উইঘুর বিচার বর্হিভূতভাবে বন্দি। এবার চীনের কমিউনিস্ট সরকারের পক্ষ থেকে গীর্জাগুলিকে দেওয়া হল আজব নির্দেশ। আনহুই, জিয়াংসু, হেবেই ও ঝেজিয়াং প্রদেশের প্রশাসনিক কর্তারা জানিয়েছে সেখানকার গীর্জার ক্রুশগুলিকে ভেঙে ফেলতে হবে। রাখা যাবে না যীশুর কোনও ছবি। শুধু গীর্জা নয়, খ্রীস্টান ধর্মাবলম্বীরা নিজেদের বাড়িতে যীশুর কোনও ছবি রাখতে পারবেন না।

উইঘুরের মুসলিম ক্যাম্পে অত্যাচারের ছবি

খবরটি পাওয়া গেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ মাধ্যম রেডিও ফ্রি এশিয়ার প্রতিবেদন থেকে । তাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী   সরকারী নির্দেশ পাওয়া মাত্র ইতিমধ্যেই আনহুই, জিয়াংসু, হেবেই ও ঝেজিয়াং প্রদেশের গীর্জাগুলিতে রাখা ক্রুশ নামিয়ে, সেগুলি নষ্ট করে ফেলা হয়েছে । এছাড়াও চীনের শাংসি প্রদেশের খ্রীষ্টান ধর্মাবলম্বীদের বাড়ি থেকে যীশুর ছবি সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তার বদলে চিনের কমিউনিস্ট নেতাদের ছবি রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উইঘুরের মুসলিমদের উপর নির্বিচারে লাঠিচার্জ

চীনা সরকারের সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় স্বাধীনতায় এই ধরনের নিপীড়নমূলক হস্তক্ষেপে নিন্দা করেছে দেশেরই একাংশ মানুষ।এর আগে চীনে মুসলিমদের উপর অত্যাচারের খবর প্রকাশ্যে আসার পরেও কোন মুসলিম দেশ প্রতিবাদ করেনি । তাঁর নেপথ্য কারন হিসাবে চীনের সমর্থন এবং বিদ্বেষ থেকে দূরে থাকাই কারন হিসাবে গার্ডিয়ান পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল ।

রেডিও ফ্রি এশিয়া জানাচ্ছে এক সপ্তাহ আগেই এই নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। প্রতিবেদন সূত্রে খবর, প্রশাসনিক কর্তারা ক্রুশ ভাঙতে এলে একাধিক খ্রীষ্টান ধর্মাবলম্বী মানুষ সেখানে জড়ো হয়ে প্রতিবাদ জানান। তবে বলপূর্বক তা ভেঙে ফেলা হয় বলে জানা গিয়েছে। ঝেজিয়াং প্রদেশে ইয়ঙ্গজিয়া এলাকাতেও ৭ই জুলাই একই ঘটনা ঘটে। প্রাদেশিক কর্তাদের তরফে জানানো হয়েছে, যেসব দরিদ্র বাসিন্দারা সরকারের তরফে সামাজিক কল্যাণ বাবদ আর্থিক সাহায্য পেয়ে থাকেন, তাঁরা যীশুর আরাধনা করতে পারবেন না। তার বদলে চেয়ারম্যান মাও ও প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংর ছবি রাখতে হবে।

মন্তব্য
Loading...