সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

গভীর রাতে ঘরে ঢুকে গণধর্ষণ, ব্যাপক উত্তেজনা উত্তর চব্বিশ পরগনায়

মঙ্গলবার উক্ত মহিলার স্বামী কাজের সুত্রে বাইরে ছিলেন মঙ্গলবার  রাতে । বাড়িতে মহিলা একাকি ছিলেন । কিন্তু রাত ২ টা নাগাদ চারজন দুষ্কৃতি দরজা ভেঙ্গে মহিলার ঘরে প্রবেশ করে এবং মহিলাকে একের পর এক ধর্ষণ করে । এমন সময় বাড়ির মালিক মহিলার চিৎকার শুনে বাঁধা দিতে এলে দুষ্কৃতিরা তাকে ব্যাপক মারধর করে । এই ঘটনা সামনে আসার পর উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার দত্তপুকুরের বামনগাছি এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে । পুলিশ অভিযুক্ত চার জনের মধ্যে তিন জনকে গ্রেপ্তার করলেও একজন দুষ্কৃতি এখনও পর্যন্ত পলাতক ।

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ গত মঙ্গলবার গভীর রাতে ঘরের দরজা ভেঙ্গে এক মহিলাকে গণধর্ষণ করল চার জন  দুষ্কৃতি ।  বাঁধা দিতে গিয়ে বাড়ির মালিক আহত হলেন । গণধর্ষণের এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে উত্তর চব্বিশ পরগনার বামনগাছি এলাকায় ।

স্থানীয় সুত্র থেকে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার উক্ত মহিলার স্বামী কাজের সুত্রে বাইরে ছিলেন মঙ্গলবার  রাতে । বাড়িতে মহিলা একাকি ছিলেন । কিন্তু রাত ২ টা নাগাদ চারজন দুষ্কৃতি দরজা ভেঙ্গে মহিলার ঘরে প্রবেশ করে এবং মহিলাকে একের পর এক ধর্ষণ করে । এমন সময় বাড়ির মালিক মহিলার চিৎকার শুনে বাঁধা দিতে এলে দুষ্কৃতিরা তাকে ব্যাপক মারধর করে । এই ঘটনা সামনে আসার পর উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার দত্তপুকুরের বামনগাছি এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে । পুলিশ অভিযুক্ত চার জনের মধ্যে তিন জনকে গ্রেপ্তার করলেও একজন দুষ্কৃতি এখনও পর্যন্ত পলাতক ।

বারাসাতের পুলিশ এ এস পি বিশ্বচাঁদ  ঠাকুর জানিয়েছেন এই ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত চারজন ছাড়া আড় কেউ যুক্ত আছে কিনা পুলিশ দেখছে । গণধর্ষণের শিকার মহিলাকে বারাসাত জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে । উল্লেখ্য যে তিন জনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে তাঁদের মধ্যে একজনের নাম রতন দাস । রতন দাস এলাকার একজন দাগি আসামি ।তাঁর নামে খুনের অভিযোগ রয়েছে । ২০১১ সালে দত্তপুকুরের কলেজ ছাত্র সৌরভ চৌধুরী হত্যা মামলায় পুলিশ তাকে অ্যাপ এরেস্ট করেছিল । কিন্তু উপযুক্ত সাক্ষী ও প্রমানের অভাবে সে ছাড়া পেয়ে যায় ।

মন্তব্য
Loading...