সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

ফের চাপে চীন; এবার করোনা নিয়ে ১৮০ ডিগ্রী ঘুরে WHO জানাল তাদের কিছুই জানানো হয়নি

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ আগে আমেরিকা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছিল চীনের হয়ে পক্ষপাতিত্ব করার জন্য । সেকারনে ট্র্যাম্প অনুদান বন্ধও করে দেয় । সঠিক সময়ে চিন মহামারী সংক্রান্ত তথ্য দেয়নি বলেই আজ গোটা বিশ্বে  এই অবস্থা  এমনটাই অভিমত ছিল অনেকের । কিন্তু WHO সেগুলি অস্বীকার করে । অবশেষে  চীনকে চাপে ফেলে এবার করোনা নিয়ে ১৮০ ডিগ্রী ঘুরে WHO জানাল তাদের কিছুই জানানো হয়নি চীনের পক্ষ থেকে এবং  সেই কথাই কার্যত স্বীকার করে নিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা WHO.

গোটা বিশ্বে বিপুল পরিমাণে মানুষ মারা গেছে । সংক্রমণ ছড়িয়েছে কোটির উপরে । ভেঙ্গে পড়েছে বিশ্ব অর্থনীতি । আর এই সব কিছুর জন্য চীনের দিকে আঙ্গুল তুলেছিল অনেক দেশ । তাদের দাবি ছিল চীন সঠিক সময়ে সঠিক তথ্য লুকিয়ে রাখার জন্য এই দিন দেখতে হচ্ছে । তবে সংক্রমণের উত্‍স নিয়ে প্রশ্ন উঠলেও WHO চীনের পক্ষ নিয়ে কথা বলে । কিন্তু সম্প্রতি এক মার্কিন সাপ্তাহিক পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিজেদের ওয়েবসাইটে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত খবরের ঘটনাক্রমে পরিবর্তন করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। পত্রিকার দাবি, হু-এর ওয়েবসাইট থেকে একটা তথ্য প্রত্যাহার করা হয়েছে যেখানে আগে বলা ছিল- উহানে নিউমোনিয়া সংক্রমণের রিপোর্ট করেছে চিন।

এই প্রতিবেদনের রিপোর্ট থেকেই জানা যাচ্ছে চীনের এই লুকিয়ে রাখার বিষয়টা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কার্যত স্বীকার করে নিল । ওই পত্রিকা আরও জানিয়েছে, জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে প্রকাশিত হওয়া মার্কিন হাউস বিদেশ বিষয়ক কমিটি রিপাবলিকান্স-এর অন্তর্বর্তী রিপোর্টে বলা হয়েছিল, উহানে শুরুর দিকে করোনা সংক্রমণের খবর একেবারেই জানায়নি চিন। এরপর সেই বক্তব্য পাল্টে ফেলেছে হু। উহানের পুর-স্বাস্থ্য কমিশনের ওয়েবসাইটকে উদ্ধৃত করা চিনা সংবাদমাধ্যমের একটি রিপোর্ট পায় চিনে অবস্থিত হু-এর দফতর। সেখানেই বলা হয়েছিল, উহানে দ্রুতহারে ছড়িয়ে পড়া এক ‘ভাইরাল নিউমোনিয়া’-র কথা।

এই প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করলে দেখা যাচ্ছে, WHO এর প্রথম দিকে চীন বা চীন থেকে ছড়ানো অতিমারি করোনা সংক্রমণের কথা  চিনা প্রশাসন প্রথম ঘটনার কথা জানিয়েছিল। কিন্তু, পরিবর্তিত বক্তব্যের অর্থ হল হু আসলে চিনা সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে ওই ধারনা তৈরি করেছিল। সরকারিভাবে, হু-কে এই ভাইরাল সংক্রমণের কথা জানানো হয়নি। অর্থাৎ চীন WHO কে সরকারীভাবে কিছুই জানায়নি । ফলে ফের আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়তে পারে চীন এমনটাই আশংকা করা হচ্ছে ।

মন্তব্য
Loading...