সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

ধর্ষণের শিকার ৭ বছর বয়সী শিশু

বাগেরহাট জেলার সদর উপজেলার কার্তিকদিয়া গ্রামের মো: আলিম উদ্দিনের পাইকের ছেলে আলতাফ পাইক একটি শিশুকে দুপুরের খাবার ও টেলিভিশন দেখানোর লোভ দেখিয়ে নিজ ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় অতিরিক্ত রক্ষক্ষরণে অসুস্থ্য শিশুটিকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে শিশুর পরিবার। শিশুটির পিতা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

অভিযোগ থেকে জানাযায়, সোমবার দুপুরে বাড়ির সামনে হাটছিল শিশুটি। এসময় আলতাফ পাইক খাবার ও টেলিভিশন দেখার লোভ দেখিয়ে ওই শিশুটিকে নিজের ঘরের মধ্যে ডেকে নিয়ে যায়। ঘরের মধ্যে উচ্চ শব্দে টেলিভিশন চালিয়ে মুখ চেপে ধরে শিশুটিকে ধর্ষণ করে আলতাফ পাইক।

শিশুটির পিতা বলেন, “ঘটনার পরে আমার মেয়ের অতিরিক্ত রক্তখরণ শুরু হয়, তাই বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আমি ঘটনার পরেই বাগেরহাট মডেল থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছি।”
বাগেরহাট সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত সেবিকারা জানান, “মেয়েটি প্রাথমিক অবস্থার থেকে এখন একটু ভাল। আরও কয়েকদিন চিকিৎসার প্রয়োজন। তার প্রয়োজনীয় চিকিৎসা চলছে।”

স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের বক্তব্যে জানা যায়, ঘটনা শোনার পরে পুলিশ প্রশাসন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত আলতাফকে আটকের জন্য পুলিশের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

সামাজিক শিক্ষার অভাবে বেশ কিছু দিন ধরে শিশুদের উত্যক্ত, ধর্ষণ সহ বিভিন্ন ঘটনা দেখা যাচ্ছে।নিরাপত্তাহীনতা এখন বাংলাদেশের একটা বড় প্রশ্ন হয়ে দাঁড়াচ্ছে দিন দিন ।

মন্তব্য
Loading...