নতুন ট্র্যাফিক আইনে কি কি সাবধনতা মেনে চললে রাস্তায় ট্র্যাফিক ফাইনের হাত থেকে বাঁচা যাবে – একবার দেখে নিন

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ ট্রাফিক ফাইন এর নিয়ম কানুন পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে পরিবর্তন হয়েছে । পরিবর্তিত নিয়মে কেন্দ্রীয় সরকার যে হারে ট্রাফিক ফাইন এর হার বাড়িয়েছে তাতে গাড়ি চালকদের  নাভিশ্বাস উঠেছে । রাস্তায় গাড়ী নিয়ে উঠলে সামনে ট্র্যাফিক থাকলে গাড়ির চালকের বুকের মধ্যে কাঁপন শুরু হয়ে যায় । নতুন করে কি ধারায় আবার জরিমানা করবে সে কথা ভেবে গাড়ী নিয়ে রাস্তায় বের হবার আগে বেশ কয়েকবার ভেবে নিচ্ছে সবাই ।  কারন ট্র্যাফিক ধরলে ভারী জরিমানা করবে এবং তা না দিলে  কড়া শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে। একাধিক ট্রাফিক নিয়ম এর সংক্রান্ত কিছু বিশেষ তথ্য যেগুলো আমাদের অবশ্যই জেনে রাখা দরকার ।জানা থাকলে রাস্তায় চলতে হয়ত ততটা ভয় না পেলেও চলবে ।

রাস্তায় যদি গাড়ী নিয়ে বের হতে হয়, তাহলে অবশ্যই ট্রাফিক আইন মেনে গাড়ি চালাতে হবে । ট্র্যাফিক আইন না মানলে রাস্তার ট্রাফিক পুলিশের সম্মুখীন হতে হবে । রাস্তায় বেরোনোর আগে অবশ্যই এগুলিতে একবার নজর দিয়ে যান, জরিমানা করার জন্য ট্রাফিক পুলিশের কাছে একটি বই বা ই চালান মেশিন থাকবে ।  এটি ছাড়া  ট্রাফিক পুলিশ কাছে না থাকে তাহলে তিনি জরিমানা নিতে পারবেন না ।

 গাড়ী নিয়ে রাস্তায় বেরোনোর আগে খেয়াল রাখতে হবে,   গাড়ির দরকারি কাগজপত্র গুলো গাড়িতে আছে কি না ?   যদি কোন ট্রাফিক পুলিশ আপনার গাড়ি থামিয়ে আপনার কাছে কাগজপত্র দেখতে চায়,  তাহলে অবশ্যই সব কাগজপত্রগুলো দেখাবেন । ট্র্যাফিক আইনের  ১৩০ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী গাড়ির কাগজপত্র পুলিশের হাতে জমা দেওয়া বাধ্যতামূলক নয় । ইচ্ছা হলে,  নিয়ম অনুযায়ী  কেবল কাগজপত্রগুলো দেখাতে পারেন । কিন্তু ইচ্ছা না হলে কাগজপত্র জমা না দিলেও চলবে ।

রাস্তায় গাড়ি চালাতে চালাতে যদি কোন ভুলের জন্য আপনি ট্র্যাফিক পুলিশের নজরে পড়েন,  তাহলে তর্ক  করবেন না, বরং শান্ত ভাবে বোঝানোর চেষ্টা করতে হবে, সেই ভুল আর হবে না কোনদিন । অনেকেই এটা ভাবেন যে,  পুলিশকে টাকা দিয়ে ছাড় পেতে পারেন,  কিন্তু সেটা করা ঠিক না । কারন সরকার এই আইন জনসাধারণের সুরক্ষার জন্যই চালু করেছে ।আপনি যদি লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি নিয়ে রাস্তায় বের হন তাহলে পুলিশ আপনাকে অবশ্যই ধরবে ।

 একটা কথা মাথায় রাখতে হবে,  জরিমানার কাগজপত্রের সঠিক কপি না দিয়ে পুলিশ  ড্রাইভিং লাইসেন্স জমা নিতে পারবে না । আপনাকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোন অথবা মদ জাতীয় নেশা দ্রব্য পান করে গাড়ি চালালে পুলিশ আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স আটক করতে পারে । কোন ভুলের জন্য ট্রাফিক পুলিশ যদি আপনাকে আটক করে তাহলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনাকে ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে হাজির হতে হবে অথবা যদি কোন ট্রাফিক পুলিশ কোন কারণবশত আপনাকে হেনস্তা করে আপনি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারেন ।

গাড়ির কাগজ পত্রের মধ্যে বৈধ লাইসেন্স, গাড়ির ইন্সুরেন্স পেপার, পলিউশন পেপার, এবং রোড ট্যাক্স সবচেয়ে দরকারি ।

এর পরেও ট্র্যাফিক পুলিশ কোন চালান কাটে, তাহলে দেখে নিতে হবে কোন আদালতে তার বিচার হবে এবং তার নাম ও ঠিকানা দেওয়া আছে কিনা ?  এছাড়া চালানে গাড়ির নাম, কোন কাগজ বায়েজাপ্ত করলে তার সঠিক উল্লেখ ইত্যাদি আছে কি না ভালো করে দেখে নিতে হবে ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য