সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

WBCSHE: এবার খাতা রিভিউ ও স্ক্রুটিনির খরচ কমানোর সিদ্ধান্ত নিল উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ প্রতি বছরে মাধ্যমিক বা উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার পর অনেক পরীক্ষার্থী তাদের পরীক্ষার খাতা রিভিউ ও স্ক্রুটিনি করতে দেন । সেখানে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ একটা টাকা নেয় । এবছর পরীক্ষার্থীদের জন্য সুসংবাদ শোনাল উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ । গতবারের থেকেই রিভিউ ও স্ক্রুটিনি করার খরচ অনেকটাই কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হল ।

গতকাল শুক্রবার উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশিত হয়েছে । গতকালই পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হবার পর উচ্চ মাধ্যমিক সংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাস ঘোষণা করেন পরীক্ষার্থীদের কথা মাথায় রেখে এবছর রিভিউ ও স্ক্রুটিনির ফি কম করা হচ্ছে । সাংবাদিক বৈঠকে তিনি জানিয়েছেন,  এ বছর কোনও পরীক্ষার্থী যদি খাতা স্ক্রুটিনি করতে চান, তাহলে তাঁকে দিতে হবে ৫০ টাকা। আগে দিতে হত ৬০ টাকা। উত্তরপত্র রিভিউয়ের ক্ষেত্রে তাঁকে দিতে হবে ৭৫টাকা। আগে দিতে হত ১০০ টাকা। অর্থাত্‍ স্ক্রুটিনিতে ১০টাকা ও রিভিউয়ে ২৫ টাকা কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংসদ।

জানা গেছে, রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশেই উচ্চ মাধ্যমিক সংসদ সভানেত্রী মহুয়া দাস এই ঘোষণা করেন । তবে রিভিউ ও স্ক্রুটিনির খরচ শুধুমাত্র এই বছরের জন্য কার্যকর হবে বলে তিনি জানান । করোনা সংক্রমণের জেরে এবছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা মাঝ পথে বন্ধ করে দিতে হয় । সব মিলিয়ে উচ্চমাধ্যমিকের শেষ তিন দিনের পরীক্ষা দিতে পারেনি পরীক্ষার্থীরা । অনেকেই পরীক্ষার নম্বর নিয়ে সন্তুষ্ট হতে পারে না । তার জন্যই করা হয় রিভিউ ও স্ক্রুটিনি ।

এবছর পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশ করাও ছিল বেশ চ্যালেঞ্জিং বিষয় । সভানেত্রী বলেন,  ১০০টি রেলস্টেশন ও থানায় উত্তরপত্র জমা ছিল। লকডাউনের মধ্যেও সংসদের কর্মীরা স্টেশন খুলিয়ে ও থানা থেকে সব উত্তরপত্র সংগ্রহ করেছেন। উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ এলাকায় আমফানের প্রভাব পড়েছিল। কিন্তু তার মধ্যেও পরীক্ষার খাতা সংগ্রহ করা হয়। প্রতিটি পরীক্ষার খাতার সঠিকভাবে মূল্যায়ণ হয়েছে। পরীক্ষক ও প্রধান পরীক্ষকরা নিজেদের কাজ যথাযথভাবে পালন করেছেন।

এদিন সভানেত্রী আরও জানান,  এবছর উচ্চমাধ্যমিকে তিন দিনের পরীক্ষা বাতিল হয়েছে। তাতে মোট ২৪টি বিষয়ে পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। তবে যে পরীক্ষাগুলি নেওয়া সম্ভব হয়েছে কেবল সেগুলির নম্বর নিয়ে ছাত্রছাত্রীরা যদি সন্তুষ্ট না হন তাহলে রিভিউ বা স্ক্রুটিনি করা যাবে। শিক্ষা সংসদ জানিয়েছে, যে বিষয়ের নম্বর নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের মনে প্রশ্ন তৈরি হবে তার আবেদন স্কুলে জমা দিতে হবে। পরে তাঁদের লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে।

মন্তব্য
Loading...