রবীন্দ্র জয়ন্তী ২০২০; রবীন্দ্র জয়ন্তীতে যে কথা না বলে থাকা যায় না

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৯ তম জন্ম জয়ন্তী । রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রত্যেকটি জন্মজয়ন্তী কে আমরা রবীন্দ্র জয়ন্তী হিসেবে পালন করে থাকি। রবি ঠাকুর সম্পর্কে বলতে গেলে লেখনীতে কুলিয়ে ওঠা দুষ্কর । রবিঠাকুর বাংলা সাহিত্যের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। কবিতা ও গানে তিনি আজীবন প্রেম, প্রকৃতি ও মানবতার বন্দনা করে গেছেন। সব জরাজীর্ণতাকে ধুয়ে-মুছে তিনি সব সময় তারুণ্য ও নতুনের জয়গান গেয়েছেন। ২৫ বৈশাখ, বাঙালির মন ও মননের সঙ্গী কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৯ তম জন্মবার্ষিকী। ১৮৬১ সালের (১২৬৮ বঙ্গাব্দ) আজকের এই দিনে কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারে তিনি জন্মগ্রহণ করেন।

হে নূতন,
দেখা দিক আর-বার
জন্মের প্রথম শুভক্ষণ
তোমার প্রকাশ হোক
কুহেলিকা করি উদ্ঘাটন
সূর্যের মতন।

নিজের জন্মদিন পঁচিশে বৈশাখকে এভাবেই ডাক দিয়েছিলেন কবিগুরু। মহাকালের বিস্তীর্ণ পটভূমিতে এক ব্যতিক্রমী রবির কিরণে উজ্জ্বল পঁচিশে বৈশাখ।বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারীর প্রকোপে এবছরের রবীন্দ্র জয়ন্তী পালন করা নিয়ে বেশ সংশয় রয়েছে । করোনা মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য এবছর রবীন্দ্র জয়ন্তী পালন করা সম্ভব হবে না । তবে রবীন্দ্রজয়ন্তী বা পঁচিশে বৈশাখ বাঙালি জাতির একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সাংস্কৃতিক উৎসব। বাংলা পঞ্জিকা অনুসারে, প্রতি বছর বৈশাখ মাসের ২৫ তারিখে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে এই উৎসব পালিত হয়। ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সহ অন্যান্য রাজ্য এবং বাংলাদেশে ও বাঙালি অধ্যুষিত অঞ্চলে বিপুল উদ্দীপনার সঙ্গে এই উৎসব পালন করা হয়। বহির্বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের বসবাসকারী বাঙালিরাও এই উৎসব পালন করেন। পশ্চিমবঙ্গে এই দিনটি রাষ্ট্রীয় ছুটির দিন হিসেবে পালিত হয়।

ভাবতে অবাক লাগে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবদ্দশায়ও রবীন্দ্রজয়ন্তী উদযাপন করা হতো। সেই সময় থেকেই এই দিনটি সাড়ম্বরে  বাঙালি জাতি বাঙালির ভাষা ও সাহিত্য, শিক্ষা ও সংস্কৃতি, মন-মানসিকতা বিকাশে রবীন্দ্রনাথের মহীরূহপ্রততীম অবদানের প্রতি ঋণ স্বীকার করে পালন করে ।

গোটা ভারতে করোনা পরিস্থিতির বর্তমান যে অবস্থা তাতে এবছর ২৫শে বৈশাখ রবীন্দ্র জয়ন্তী সম্মিলিতভাবে পালন করা সম্ভব নয় । কারন করোনা মোকাবিলায় কোন প্রকার জমায়েত করার উপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে ভারত এবং বাংলাদেশ উভয় দেশেই । ফলে তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে ভার্চুয়াল রবীন্দ্র জয়ন্তী পালন করা ছাড়া অন্য উপায় নেই ।

রবীন্দ্র জয়ন্তী ২০২০ বিষয়ে গত ২৩শে এপ্রিল বিধাননগরের  ‘প্রয়াসম’ নামে একটি এনজিও সংস্থা জানিয়েছিল এই বছর কোন প্রকার জমায়েত না করে ভার্চুয়াল রবীন্দ্র-উৎসবের কথা। এবিষয়ে সংস্থার পক্ষ থেকে তারা জানিয়েছে,  ‘মনের তাগিদে যোগ দেওয়াটাই আসল, যোগ্যতার মাপকাঠি খোঁজা নয়।’ তাঁদের প্রস্তাবে সাড়া দিয়েছেন অনেকেই । অনেকেই  রবি ঠাকুরের জন্মদিন উপলক্ষ্যে তাঁর গান, আবৃত্তি, নাচ, যন্ত্রসঙ্গীত রেকর্ড করে পাঠিয়ে দিয়েছেন প্রয়াসমের কাছে। তারা সব ভিডিয়োগুলিকে একত্রিত করে একাধিক ভিডিয়ো বানিয়েছে, যার পোশাকি নাম ‘শান্তি-নিকেতন।’ ফেসবুকে সোমবার, ৪ তারিখ থেকে পোস্ট করা হচ্ছে এগুলো। ৮ তারিখ পর্যন্ত ধাপে ধাপে আরও ভিডিয়ো রিলিজ করা হবে।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...