হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ, হার্ট অ্যাটাকের আগে নিজেদের শরীর কিভাবে সিগন্যাল দেয় ?

র্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ গুলি সমস্ত মানুষের জেনে রাখা উচিত। শরীর থাকলেই রোগ হবে। বিস্তারিত পড়ুন -

0

হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ গুলি সমস্ত মানুষের জেনে রাখা উচিত। শরীর থাকলেই রোগ হবে। বর্তমান দুনিয়ায় মানুষের হার্ট অ্যাটাক একটি বড় সমস্যা । প্রায়ই শোনা যায়, অমুক সুস্থ লোক আচমকা হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন । কিন্তু এটি আচমকা হয় না। হার্ট অ্যাটাক হবার আগে বেশ কিছু দিন আগে থেকেই আমাদের শরীর সিগন্যাল দিতে শুরু করে । এবার জেনে নিন শরীর কিভাবে সিগন্যাল দেয় হার্ট অ্যাটাকের আগে ।

যদি আমাদের শরীরের  হৃদপিণ্ডের মধ্যকার কোন শিরা রক্ত প্রবাহ বন্ধ করে দেয় অথবা কোনো শিরায় রক্ত জমাট বেঁধে হৃদপিণ্ডে রক্ত প্রবাহে বাঁধার সৃষ্টি করে তখন হার্ট অ্যাটাক হয়ে থাকে। সাধারনভাবে দেখা যায়,  বয়স, উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা, উচ্চ মাত্রায়  কোলেস্টোরল, অতিরিক্ত মোটা, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস, মদ্যপান, মানসিক চাপ এবং শারীরিক পরিশ্রম না করা আমাদের হার্ট অ্যাটাকের ঝুকি বাড়িয়ে দেয় ।

তবে  অনেক সময় হার্ট অ্যাটাক হলেও সঠিকভাবে বোঝা সম্ভব হয় না। দেখা গেছে, সামান্য বুকে ব্যথা নিয়ে চিকিৎসকের কাছে গেছেন। পরীক্ষা করার পর চিকিৎসক জানালেন আপনার হার্ট অ্যাটাক হয়েছে । এই কারনে সেকারণে শুধু বুকে ব্যথার সাথে হার্ট অ্যাটাক জড়িয়ে নিয়ে বসে থাকলে চলবে না, জানতে হবে অন্যান্য লক্ষণগুলো।

হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ
man holding his chest while heart attack

হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ গুলি পড়ুন

হার্ট অ্যাটাকের আগে শরীরে দুর্বলতা প্রকাশ পায় এবং ছোটো ছোটো শ্বাস প্রশ্বাস নিতে বাধ্য হয়ঃ

সুস্থ আছেন । কিন্তু কিছুদিন ধরেই লক্ষ্য করছেন আপনার শরীর কেমন দুর্বল হয়ে পড়ছে । একটু হাঁটাহাঁটি করলেই শ্বাস ঘন করে নিতে হচ্ছে ।যদি দেখেন  কোনো কারণ ছাড়াই শারীরিক দুর্বলতা এবং খুব সহজেই হাঁপিয়ে উঠে ঘন ঘন শ্বাস নেয়ার সমস্যা শুরু হয়েছে, তাহলে সতর্ক হয়ে যান ।কারন এই রকম শারীরিক দুর্বলতা এবং শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা হলে বুঝতে হবে হৃদপিণ্ডের বিশ্রামের প্রয়োজন।

আপনার কি সারাদিন ও রাতে অতিরিক্ত ঘাম হচ্ছে ? 

চুপচাপ বসে আছেন । বাইরের পরিবেশও বেশ ভাল । কিন্তু আপনি কুল কুল করে ঘামছেন । যদি  হটাৎ করে অতিরিক্ত ঘেমে যাওয়ার সমস্যা শুরু হয়,  সে তা অবহেলা করবেন না। কারণ, এটিও হার্ট অ্যাটাকের একটি লক্ষণ। যখন হার্ট ব্লক হয় তখন রক্ত সঞ্চালনে হৃদপিণ্ডের অনেক বেশি কাজ করতে হয়। এই অতিরিক্ত পরিশ্রমের ফলে ঘামের সৃষ্টি হয় এবং এই ঘাম সাধারণত অনেক ঠাণ্ডা হয়ে থাকে। এই ধরনের সমস্যাকে অবহেলা না করে অবিলম্বে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন ।

কিছু খেলে হজম হচ্ছে না, মাঝে মাঝে মাথা ঘুরছে বা বমি বমি ভাব দেখা দিচ্ছেঃ

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, যারা হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের হজমের সমস্যা এবং গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সমস্যা দেখা দেয়।অনেক সময় আমাদের খাওয়া দাওয়ার পর বুক জ্বালা করে বা চোঁয়া ঢেঁকুর উঠতে শুরু করে । স্বাভাবিকভাবে গ্যাসের সমস্যা হয়েছে ভেবে নিয়ে গ্যাসের কোন ট্যাবলেট খেয়ে নিই । কিন্তু বুক জ্বালা ছাড়াও  আচমকা কোনো কারণ ছাড়াই মাথা ঘোরানো, বমি বমি ভাব এবং বমি করার বিষয়গুলো যদি দেখা যায় তাহলে আগে থেকেই সাবধান হয়ে যান ।

অস্বস্তিবোধ, বুকে চাপ চাপ ব্যথা অনুভব করাঃ

বুকে ব্যাথা মানেই যে হার্ট অ্যাটাক হতে চলেছে এমনটা নয় । দেখা গেছে অনেক সময় হার্ট অ্যাটাকের সময় বুকে ব্যথা অনুভূত হয় না। এ ক্ষেত্রে বুকে অস্বস্তিকর অনুভূতি এবং বুকে চাপ ধরা বা ভারি ভাব অনুভব করার মত অনুভব হতে পারে । পাশাপাশি শ্বাস নিতেও সমস্যা হতে পারে। কোনভাবেই এই বিষয় অবহেলা করতে যাবেন না ।

বুক ছাড়াও শরীরের অন্য অংশে ব্যাথা বোধঃ

শুধু বুকে ব্যথাই নয়, শরীরের অন্যান্য বিশেষ কিছু অঙ্গে ব্যথা অনুভব হওয়াও হতে পারে হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ। পেটের উপরের অংশ, কাঁধ, পিঠ, গলা, দাঁত ও চোয়াল এবং বাম বাহুতে হুট করে অতিরিক্ত ব্যথা হওয়া বা চাপ অনুভব অথবা আড়ষ্টতা অনুভব করাও হতে পারে হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ। এমনটা হলে নিজে ডাক্তারি বা অনভিজ্ঞ লোকের পরামর্শ না নিয়ে একবার হার্ট চেক করিয়ে নিন ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...