স্বল্প বাজেটেও যে চমক আনা সম্ভব সেটা প্রমান করে চলেছে নিউব্যারাকপুর মিলন সংঘ ক্লাব

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ প্রতি বছরের ন্যায় এবারও নিউব্যারাকপুরে বেশ জাঁকজমকের সাথে পালিত হচ্ছে বাঙ্গালীর শ্রেষ্ঠ উৎসব । পুজো প্যান্ডেল থেকে শুরু করে মণ্ডব সজ্জা বা প্রতিমার বৈচিত্র্য সৃষ্টিতে এক অদ্ভুত মিশেল দেখা যায় এই নিউব্যারাকপুরের পুজো প্যান্ডেলগুলিতে । কিন্তু এসবের মধ্যে মিলন সংঘ ক্লাব গত চার বছর ধরে তাদের চিন্তা ভাবনা এবং মণ্ডপ সজ্জার ক্ষেত্রে এক বিশেষ দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে । তাদের সংঘ সদস্যরাই যুক্ত থাকে মণ্ডপ সজ্জার কাজে । সব চেয়ে বড় বিষয় এলাকাবাসী কেবল মাত্র দর্শকের ভুমিকায় থাকেন না, তারাও সদস্যদের পাশে থেকে হাতে হাত মিলিয়ে পুজোর কাজ করেন । যার ফলশ্রুতিতে নিউব্যারাকপুরের প্রথম সারির পুজোগুলির মধ্যে স্থান করে নিয়েছে মিলন সঙ্ঘের নাম ।

এবারেও বিগত বছর গুলির ন্যায় নতুন চমক দিচ্ছে মিলন সংঘ । উল্লেখ্য মিলন সঙ্ঘের এবারের পুজো বাজেট মাত্র ২ লক্ষ টাকা । এই স্বল্প বাজেটে কিভাবে এই থিম পুজো করা সম্ভব জিজ্ঞাসা করা হলে, পুজো কমিটির একজন অন্যতম উদ্যোক্তা এবং রুপায়নের অন্যতম কারিগর কাজল চক্রবর্তী মহাশয় বেশ কিছুটা ক্ষোভের সাথে জানান, “বিগত বছর গুলিতে আমরা বেশ সাফল্যের সাথে দুর্গাপূজা করে আসছি । নিজেদের এলাকা ছাড়াও অনেক দূর থেকে দর্শক আসেন আমাদের পুজা প্যান্ডেল দর্শন করতে । আমরা যে বাজেট নিয়ে প্রতিবার পুজা করি, সেই বাজেটে এই ধরনের থিম পুজা করার কথা অনেকে ভাবতেই পারবেন না । এটা সম্ভব ক্লাব সদস্যদের আন্তরিক প্রচেষ্টা এবং আমাদের এলাকাবাসীর সার্বিক সহায়তার জন্য । কিন্তু গত দুই বছর ধরে আমাদের পূজা প্যান্ডেলের মুল্যায়ন সঠিক ভাবে করা হয়নি । এমন কি পুজার সমন্বয় কমিটি আমাদের প্যান্ডেল দেখতে আসার সময় পর্যন্ত পায়নি । আমাদের এবারের থিম  “সৃষ্টি সুখের মাঝে, খুঁজি নিজের মাকে” । এবার আমাদের দর্শক প্যান্ডেলে জগত জননীর সাথে তাদের নিজেদের মাকেও খুঁজবে ।

মিলন সঙ্ঘের পূজার অন্যতম উদ্যোক্তা এবং ক্লাব প্রেসিডেন্ট দীপক বিশ্বাস । তিনি প্রতিবারের ন্যায় এবারও ভীষণ ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন চূড়ান্ত পর্যায়ে প্যান্ডেলের খুঁটিনাটি বিষয় গুলি নিয়ে । মিলন সঙ্ঘের পুজা নিয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে বেশ কিছুটা গর্বিত সুরে তিনি বলেন, “এবার আমরা ৩২তম বছরে পড়েছি । আমরা সবসময় চেষ্টা করি সঙ্ঘের সাংগঠনিক বাতাবরণ সঠিক রাখতে । পূজার সময় আমরা সঙ্ঘেই খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করি । এলাকার মানুষ আমাদের পাশে আছেন । তারা নিঃসঙ্কোচে যোগদান করেন । আগামী দিনে আমরা আরও নতুন নতুন চিন্তা ভাবনা নিয়ে আমাদের পুজা করব , এ প্রতিশ্রুতি দিতে পারি ।”

এবার মিলন সঙ্ঘের পুজায় থিম সঙ থাকছে । বেশ ভালই হয়েছে থিম সঙ । এত কম বাজেটে থিম প্যান্ডেল, থিম সঙ, সকলে মিলে এক সাথে খাওয়া দাওয়া, হৈ চৈ, কিভাবে সম্ভব জানতে হলে অবশ্যই একবার ঢু মারতে হবে মিলন সঙ্ঘের পুজা প্যান্ডেলে ।   নিচে আপলোড করে দেওয়া হল সেই সুন্দর থিম সঙ ।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
মন্তব্য
Loading...