সময়ের সাথে হাত মিলিয়ে

Advertisement

বাড়িতেই করা যাবে করোনা টেস্টঃ কলকাতা পৌরসভার নয়া উদ্যোগ

0

বং দুনিয়া ওয়েব ডেস্কঃ এবার বাড়িতে বসেই করা যাবে করোনা টেস্ট । শুধু দরকার একটি WhatsApp massage. কলকাতা পৌরসভা এবার আরও বেশি করে করোনা টেস্ট এবং ঘরে ঘরে পরীক্ষা করার জন্য চালু করল  ‘কোভিড টেস্টিং টু ইওর ডোরস্টেপ’ কর্মসূচি । শনিবার কলকাতা পৌরসভার এই নয়া উদ্যোগের কথা ঘোষণা করলেন  পৌরসভার মুখ্যপ্রশাসক ও পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

কিভাবে কাজ করবে পৌরসভার কর্মীরা ! এই বিষয়ে পৌরসভার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, একটি WhatsApp মেসেজের মাধ্যমে যে কেউ করোনা টেস্টের জন্য আবেদন করতে পারবেন ।ম্যাসেজ পাবার পর পৌরসভা থেকে যোগাযোগ করা হবে এবং ঠিকানা নিয়ে আবেদনকারীর বাড়িতে পোঁছে যাবে করোনা পরীক্ষকের দল । সেখানে খুব কম সময়ের মধ্যেই করোনা টেস্টের ফলাফল জানিয়ে দেওয়া হবে । তবে, এক্ষেত্রে একসঙ্গে নূন্যতম ২০ জনকে টেস্টিংয়ের জন্য আবেদন করতে হবে।

কিভাবে খুব অল্প সময়ের মধ্যে করোনা টেস্ট করা হবে সে বিষয়ে পৌরসভা জানিয়েছে,  অ্যান্টিজেন টেস্টের মাধ্যমে করোনা পরীক্ষা করা হবে । যদি আবেদনকারী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন কিনা সেই ফলাফল পরীক্ষা করে ৪০-৫০ মিনিটের মধ্যে জানিয়ে দেওয়া হবে । এরপর যদি করোনা পজিটিভ পাওয়া যায় তাহলে আক্রান্তের শারীরিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে হোম-কোয়ারেন্টাইন না হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে হবে সেই পরামর্শ দেওয়া হবে ।

কলকাতা পৌরসভার পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, এই নয়া উদ্যোগের ফলে  কোমর্বিডিটি চিহ্নিত করতে বাড়ি বাড়ি সার্ভে করে ডেটাবেস তৈরি করা হবে । এই বিষয়ে শনিবার কলকাতা পৌরসভার মুখ্য প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম সাংবাদিক সম্মেলনে জানান,  করোনা টেস্টিংয়ের ক্ষেত্রে এবার ডোর-স্টেপ টেস্টিংয়ের পরিষেবা দেবে পুরসভা। আর তার জন্য চালু করা হল একটি বিশেষ WhataApp নম্বর। কোনও উপসর্গযুক্ত ব্যক্তি নিজের করোনা পরীক্ষা করাতে চাইলে তাঁকে WhataApp -এ মেসেজ করতে হবে 9830037493 নম্বরে। দিতে হবে নাম, ঠিকানা।

কলকাতা পৌরসভার এই ব্যবস্থায় করোনা টেস্টের ফলাফল ১০০ শতাংশ নিশ্চিত করার জন্য  যদি কোনও ব্যক্তি উপসর্গ বিশিষ্ট হন এবং তার র‌্যাপিড পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসে সেক্ষেত্রে আরটিপিসিআর পদ্ধতিতে পুনরায় তার করোনা পরীক্ষা করা হবে। এছাড়া মেডিকেল হিস্ট্রি সংগ্রহ করে একটি ডেটাবেস তৈরি করা হবে । এর ফলে  করোনা আক্রান্ত ব্যাক্তি আগে কোনও বড় রোগের শিকার হয়েছিলেন কিনা, করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে তার মেডিক্যাল হিস্ট্রি নিয়ে আলাদা চিকিৎসকদের খোঁজ করতে হবে না। এর ফলে খুব তাড়াতাড়ি চিকিৎসা শুরু করা যাবে ।

মন্তব্য
Loading...